২৮ জুনের প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ ৪র্থ ধাপের পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান ২০১৯

By | June 29, 2019

Primary Assistant Teacher Job Exam Important Notice. The Primary Assistant Teacher Job Exam related Important Notice has published by the Authority. Assistant Teacher of Primary Job test Date revealed. Primary Assistant Teacher Job Exam Notice is currently an engaging job circular in East Pakistan. connection the good and massive service team of Primary Assistant Teacher. Primary Assistant Teacher is currently terribly dependable Govt. service team in East Pakistan. The Primary Assistant Teacher Job Circular connected Notice and every one data is found my website www.allobscircularbd.com.

Primary Assistant Teacher Job Exam Notice

Primary Assistant Teacher Job Exam Notice

Primary Education Department has taken initiatives to appoint vacant posts of Assistant Teachers of Government Primary School. A new investigation will publish along with the suspension. The Primary and Mass Education Ministry said, on December 9, 2014, for the appointment of assistant teachers, a notification issued by the Primary Education Department. About 12 million candidates applied for this. But in the case of ‘pool’ and ‘panel’ teachers’ case-related complications, the recruitment process for about 10,000 posts stuck in response to the notification.

Primary Assistant Teacher Job Exam Notice

Directorate of Primary Education Assistant Teacher Recruitment Admit Card for 2019 published by dpe teletalk website & you can also download DPE Teletalk Admit Card  from alljobscircularbd.com . DPE Account Assistant Exam Date And Admit Download below this post link. DPE Exam date and notice published at daily Newspaper jugantor today.

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ ৪র্থ ধাপের পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান ২০১৯

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ ৪র্থ ধাপের পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান ২০১৯ নিয়ে আজকে আলোচনা করা হবে। সরকারি প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের চতুর্থ ধাপের লিখিত পরীক্ষা আজ শুক্রবার (২৮ জুন) অনুষ্ঠিত হয়েছে। alljobscircularbd পাঠকদের জন্য শিক্ষক নিয়োগের চতুর্থ ধাপের পরীক্ষার প্রশ্ন এবং উত্তর তুলে ধরা হলো। 28th June held Primary Teacher Job Exam 4th Phase Question Answer/Solution 2019

চার ধাপে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শুক্রবার ৪র্থ ধাপের পরীক্ষা ২৮ জুন অনুষ্ঠিত হয়।। উল্লেখ্য, গত ২৪ মে প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগের প্রথম ধাপের পরীক্ষা এবং ২১ জুন, ৩১ মে দ্বিতীয় ও ৩য় ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ ৪র্থ ধাপের পরীক্ষার প্রশ্ন ও সমাধান ২০১৯

শিক্ষক নিয়োগ ৪র্থ ধাপের প্রশ্ন সমাধান।

আরো পড়ুন-

প্রাথমিক নিয়োগ পরীক্ষার পাশ মার্কস কত?

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার শেষ ধাপের বাংলা অংশের সমাধান
তারিখ:-২৮.০৬.২০১৯
(কোর্ড 4021 এবং 3918)
০১| সমজাতীয় একাধিক পদ পরস্পর থাকলে কোন বিরামচিহ্ন বসে?
উত্তর→কমা বসে
(যেমন সুখ,দুঃখ,আশা,নৈরাশ্য)
০২| সংলাপ এর সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদ?
উত্তর→সম্+লাপ
তেমনি সম্+বাদ=সংবাদ
০৩| “আকাশে”চাঁদ উঠেছে “আকাশে”কোন কারকে কোন বিভক্তি?
উত্তর→অধিকরণে ৭মী
(আকাশের যে কোন এক জায়গায়)
০৪| তার টাকা আছে কিন্তু দান করেন না।কোন ধরনের বাক্য?
উত্তর→যৌগিক বাক্য
(কিন্তু,সুতরাং,এবং ইত্যাদি যৌগিক অব্যয়)
০৫| “কাজলকালো”এর সঠিক ব্যাসবাক্য কী?
উত্তর→কাজলের ন্যায় কালো।
(উপমান কর্মধারয় সমাস কারণ কাজল বিশেষ্য কালো বিশেষণ)
০৬| জিভের সামনের অংশের সাহায্যে উচ্চারিত স্বরধ্বনিকে কী বলে?
উত্তর→সম্মুখ স্বরধ্বনি
০৭| বিনা যত্নে উৎপন্ন হয় যা”এক কথায়?
উত্তর→অযত্নলব্ধ
০৮| তালব্য বর্ণ কোনগুলো?
উত্তর→চ,ছ,জ,ঝ
০৯| মাছের মায়ের পুত্র শোক কী?
উত্তর→মিথ্যা শোক
১০| কোন বানানটি সঠিক?
উত্তর→কনিষ্ঠ
সমাধান→রমজান
১১| মা খোকাকে চাঁদ দেখাচ্ছে এখানে দেখাচ্ছে কোন ক্রিয়ার উদাহরণ?
উত্তর→প্রযোজক ক্রিয়ার
১২| “ঢেউ”এর প্রতিশব্দ কী?
উত্তর→ঊর্মি
১৩| “একেই কি বলে সভ্যতা” কার রচনা?
উত্তর→মাইকেল মধুসূদনের
১৪| কোনটি খাঁটি বাংলা উপসর্গ?
উত্তর→ইতি
(অব,অতি,পরি সংস্কৃত)
১৫| কোন শব্দটিতে বিদেশি প্রত্যয় ব্যবহৃত হয়েছে?
উত্তর→চালবাজ(ফারসি বাজ প্রত্যয়)
(কলমবাজ,ধান্দাবাজ ধোঁকাবাজ ইত্যাদি)
১৬| নদীটি উত্তরমুখে প্রবাহিত এখানে মুখ কোন অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে?
উত্তর→দিক অর্থে
১৭| কোনটি সঠিক বানান?
উত্তর→সৌজন্য
(সৌজন্যতা প্রত্যয় জনিত ভুল)
(১৮ প্রশ্নটি স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে না)
১৯| কোনটি তদ্ভব শব্দ?
উত্তর→চাঁদ—–চন্দ্র>চাঁদ
(চন্দ্র, সূর্য,গগন,ভবন,পবিত্র তৎসম)
২০| কোন বানানটি সঠিক?
উত্তর→রীতিনীতি
সমাধান Md. Ramjan(বি.এ অনার্স বাংলা)
(সমাধান কোর্ড 3918)
০১| কোন বানানটি সঠিক?
উত্তর→যথোচিত
(যথোচিত অর্থ যথেষ্ঠ বা উপর্যুক্ত)
০২| ইট-পাথরের দালান,এখানে “ইট-পাথরের” কোন কারকে কোন বিভক্তি?
উত্তর→করণে ৭মী
০৩| ছেড়া চুলে খোপা বাঁধা”মানে?
উত্তর→বৃথা চেষ্টা
০৪| ব্যয় করতে কুণ্ঠাবোধ করেন যিনি?
উত্তর→কৃপণ
(যে অধিক ব্যয় করতে কুণ্ঠাবোধ করে- ব্যয় কুণ্ঠ)
০৫| উপকূল কোন সমাস?
উত্তর→অব্যয়ীভাব সমাস
(কূলের সদৃশ=উপকূল)
০৬| কোন বানানটি সঠিক?
উত্তর→অভ্যন্তরীণ
০৭| উপরের ও নিচের ঠোঁটের সাহায্যে উচ্চারিত ধ্বনিকে কী বলে?
উত্তর→ওষ্ঠ ধ্বনি
০৮| “চিকুর”শব্দের প্রতিশব্দ নয় কোনটি?
উত্তর→কর
০৯| নিচের কোন শব্দটি প্রত্যয় সাধিত?
উত্তর→খণ্ডিত(খণ্ড+ইত)
১০| সৈয়দ শামসুল হকের নাটক কোনটি?
উত্তর→পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়
(এটি কাব্যনাট্য-১৯৭৫)
১১| কোন বানানটি সঠিক?
উত্তর→গৃহিনী
১২| বিদেশি উপসর্গ কোন শব্দে ব্যবহৃত হয়েছে?
উত্তর→নিমরাজি(ফারসি উপসর্গ)
১৩| কোনটি তৎসম শব্দ?
উত্তর→লক্ষ্য
১৪| কোন বাক্যটি শুদ্ধ?
উত্তর→তাহার জীবন সংশয়াপূর্ণ
১৫| এত অল্প টাকায় মাস চলবে না এখানে চলা কোন অর্থে ব্যবহৃত?
উত্তর→সংকুলান হওয়া
১৬| নাসিক্য বর্ণ কোনগুলো?
উত্তর→ঙ,ঞ,ণ
১৭| সমাসবদ্ধ পদ বিচ্ছিন্ন করে দেখানোর জন্য কোন বিরাম চিহ্ন বসে?
উত্তর→হাইফেন
(মা-বাবা,সাত-সতের)
২০| বাবুল পড়ে”এ বাক্যে পড়ে কোর ক্রিয়া?
উত্তর→অসমাপিকা ক্রিয়া
(কোন উত্তরে কনফিশন মনে হলে ঠিক করে নিন)

প্রাইমারি পরীক্ষার সাধারণ জ্ঞান,কম্পিউটার ও বিজ্ঞান অংশের সমাধান
.
উইন্ডমিলের সাহায্যে কি উৎপাদন করা যায়
—-বিদ্যুৎ
.
ঢাকার আহসান মঞ্জিল কে নির্মাণ করেন
—-নবাব আব্দুল গণি
.
বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেটের মর্যাদা লাভ করে
—-২৬ জুন ২০০০ সালে
.
বাংলাদেশের জাতীয় পতাকার দৈর্ঘ্য ও প্রস্থের অনুপাত কত
—-৫:৩
.
ব্রিটিশ শাসনের বিরুদ্ধে বাঙালিদের প্রথম বিদ্রোহের নাম কি
—-ফকির ও সন্ন্যাসী বিদ্রোহ
.
বাংলাদেশের কোন রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে জাতীয় সংগীতের কত চরণ বাজানো হয়
—-প্রথম ৪ চরণ
.
অপটিক্যাল ফাইবার হলো
—–সরু কাচতন্তু যা আলোক রশ্মি বহনের কাজে ব্যবহৃত হয়
.
বিশ্বে প্রথম কম্পিউটারের নাম হলো
—- ENIAC
.
কোন দেশের অধিবাসীরা ডাচ নামে পরিচিত
—-নেদারল্যান্ড
.
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধান কোন তারিখ থেকে কার্যকর হয়
—-১৬ ডিসেম্বর,১৯৭২
.
ছিয়াত্তরের মন্বন্তর নামক ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ কত সালে ঘটে
—-বাংলা ১১৭৬ সনে
.
১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধকালে annihilate these demons শিরোনামের পোস্টারটি কে এঁকেছিলেন
—-কামরুল হাসান
.
IMF পূর্ণরূপ কি
—-International Monetary Fund
.
নিচের কোনটি সূর্যের আলোকে বৈদ্যুতিক শক্তিতে রূপান্তর করতে পারে
—-সৌর প্যানেল
.
এসিডের একটি ধর্ম হলো
——এটি নীল লিটমাস পেপারকে লাল করে।
.
কোনটি ধনুষ্টঙ্কার রোগ সৃষ্টি করে
—– ব্যাসিলাস (এরা দেখতে লম্বা দণ্ডের ন্যায়।ধনুষ্টঙ্কার ,রক্ত আমাশাও সৃষ্টি করে )
.
নবায়নযোগ্য প্রাকৃতিক সম্পদ কোনগুলো
—-বায়ু,পানি ও সূর্যের আলো
.
কার্ডিওলজি কোন রোগের সাথে সম্পর্কৃত
—–হার্ট
.
বাংলাদেশের প্রশাসনিক কাঠামোর সর্বনিম্ন স্তর কোনটি
—–ইউনিয়ন
.

He was taken to task. অর্থ?

উত্তরঃ তাকে তিরস্কার করা হয়েছিল

৫. ৯২২০ জন সৈন্য হতে কমপক্ষে কতজন সৈন্য সরিয়ে রাখলে বা তাদের সাথে কমপক্ষে কতজন সৈন্য সরিয়ে রাখলে সৈন্যদলকে বর্গাকারে সাজানো যাবে?

উত্তরঃ ৪ জন

৬. যে ব্যঞ্জন ধ্বনি উচ্চারণের মুখ দিয়ে অধিক বাতাস বের হয় ও নিচের চোয়ালের মাংসপেশিতে বেশি চাপ পড়ে সে ব্যঞ্জনগুলোকে বলে?

উত্তরঃ মহাপ্রাণ

৭.The Principal had an inquiry —-the case.

উত্তরঃ into

৮. মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম প্রেসিডেন্টের নাম কি?

উত্তরঃ জর্জ ওয়াশিংটন

৯.

১০.শব্দের সংক্ষিপ্ত ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোন বিরাম চিহ্ন বসে?–

১১.

১২.`অনুচিত শব্দটি কোন সমাস?–

১৩. কোনটি সঠিক?

উত্তরঃ Paper is made from wood

১৪. কোন বানানটি শুদ্ধ?

উত্তরঃ Occasion

১৫.‘ আজকে নগদ কালকে ধার’ এখানে আজকে কোন কারকে কোন বিভক্তি?–

১৬.

১৭.‘দীর্ঘস্থায়ী দুঃখ’ কে কোন বাগধারা দিয়ে প্রকাশ করা হয়?–২২. Which sentence is with correct punctuation?

উত্তরঃ Maria, my student, is on leave today.

২৩. I suggest that he—-there.

উত্তরঃ goes

২৪.পাঠক শব্দটি কোন শ্রেণীর ধাতু দ্বারা গঠিত–

২৫.

২৬. look forward means?

উত্তরঃ Expect with eager

শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নের সমাধান সেট ২৮১৫
১. Kamal did not join the army , here the word army is–
২. The study of religion is– Theology
৩. কোনটি সঠিক বানান- সৌজন্যে
৪. শামীমের আয় ও ব্যয়ের অনুপাত 20:15 হলে তার মাসিক সঞ্চয় আয়ের শতকরা কত ভাগ?–
৫. 535 টাকায় একটি জামা বিক্রি করে শতকরা 60 ভাগ লাভ হয় জামাটি কত টাকায় বিক্রি করলে শতকরা 20 ভাগ ক্ষতি হবে–
৬. 60 লিটার কেরোসিন ও পেট্রোলের মিশ্রণের অনুপাত 7:3 । ওই মিশ্রণে আর কত লিটার পেট্রোল মিশালে অনুপাত 3:7 হবে—
৭. জিভের সামনের অংশের সাহায্যে উচ্চারিত স্বরধ্বনি গুলোকে কি বলে-সম্মুখ স্বরধ্বনি
৮. Which one is reflexive pronoun—
৯. গরিবের জন্য বড়লোকের দরদটা মাছের মায়ের পুত্রশোকের মতোই , এ বাক্যে মাছের মায়ের পুত্রশোক কোন অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে-মিথ্যা শোক
১০. বিনা যত্নে উৎপন্ন হয় যা -এর বাক্য সংকোচন কি–অযত্নজাত
১১. বার্ষিক 10% মুনাফায় 8000 টাকার 3 বছরের চক্রবৃদ্ধি মূলধন হবে–
১২.
১৩. কোনটি তদ্ভব শব্দ- চাঁদ
১৪. আকাশে চাঁদ উঠেছে এখানে আকাশ কোন কারকে কোন বিভক্তি-
১৫. সমজাতীয় একাধিক পদ পরপর থাকলে কোন বিরাম চিহ্ন বসে-সেমিকোলন
১৬. 1024 এর বর্গমূল কত-
১৭. কাজলকালো এর সঠিক ব্যাসবাক্য কোনটি- কাজলের ন্যায় কালো
১৮. মনির ও বোনেরা এর অনুপাত 4ঃ3 । তপন রবিনের আই এর অনুপাত 5ঃ4 । মনিরের আয়ের 120 টাকা হলে রবিনের আয় কত-
১৯. মা খোকাকে চাঁদ দেখাচ্ছে এ বাক্যে দেখাচ্ছে কোন ক্রিয়া–প্রযোজক
২০. জাতিসংঘের সদর দপ্তর কোথায় অবস্থিত-নিউইয়র্ক -নিউইয়র্ক
২১. বাংলাদেশের প্রথম ইপিজেড কোথায় গড়ে উঠেছে-চট্টগ্রাম
২২. বাহাদুর শাহ পার্ক কোথায় অবস্থিত-ঢাকায়
২৩. পোড়ামাটি নীতি কোন বাহিনীর জন্য প্রযোজ্য ছিল-পাকিস্তান সেনাবাহিনী
২৪. Karim as well as rahim –praise–
২৫. কোনটি শুদ্ধ বাক্য-তার সৌজন্যে আমি সুযোগটি পেয়েছি
২৬. Ensure means–
২৭. সংলাপ শব্দের সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদ কোনটি- সম+ লাপ
২৮. I — him only one letter up to now—
২৯. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কত বছর বয়সে সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পান— 52 বস
৩০. The child cried for — mother–
৩১. Which one is always used as singular–
৩২. 2+4+8+16+ ——- এই ধারাটির কত তম পদের মান 128 ?—
৩৩. Let the book be read by you “ বাক্যের active form হচ্ছে–
৩৪.
৩৫.
৩৬.
৩৭.
৩৯. কোন বানানটি শুদ্ধ-রীতিনীতি
৪০. At home এর অর্থ হচ্ছে–
৪১. পৃথিবী এবং অন্য যে কোন বস্তুর মধ্যে যে আকর্ষণ তাকে বলা হয়- মধ্যাকর্ষ
৪২. বাংলাদেশ কোন সালে আইসিসি ট্রফি চ্যাম্পিয়ন হয়–1997
৪৩. কোন বানানটি শুদ্ধ-কনিষ্ঠ
৪৪.
৪৫. বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী সরকার গঠিত হয়-
৪৬. Black and blue অর্থ কি –
৪৭. দুইটি কোণের পরিমাপ এর যোগফল দুই সমকোণ হলে কোন দুটি পরস্পর-
৪৮.
৪৯. দুটি সংখ্যার গসাগু ও লসাগু যথাক্রমে 12 ও 160 । একটি সংখ্যা 80 হলে অপর সংখ্যাটি কত-
৫০.
৫১. 80, 96—–128 শূন্যস্থানে সংখ্যাটি কত হবে-
৫২. নদী-টি উত্তর মুখে প্রবাহিত এখানে মুখ কোন অর্থ প্রকাশ করে- দিক
৫৩. 1971 সালের 7 ই মার্চ বঙ্গবন্ধু কোথায় ভাষণ দিয়েছিলেন- ঢাকার রেসকোর্স ময়দান
৫৪. পুত্রজায়া হল- মালেশিয়ার প্রশাসনিক রাজধানী
৫৫.কোন ভিটামিনের অভাবে রাতকানা রোগ হয়- ভিটামিন এ
৫৬. 6 টি পরস্পর পূর্ণ সংখ্যা দেয়া আছে প্রথম তিনটির যোগফল 27 হলে শেষ তিনটির যোগফল কত-
৫৭.কোনটি খাঁটি বাংলা উপসর্গ- আব
৫৮.
৫৯. একেই কি বলে সভ্যতা গ্রন্থটির রচয়িতা কে- মাইকেল মধুসূদন দত্ত
৬০. রূপান্তরিত পাতার উদাহরণ কোনটি-আকর্ষী
৬১. কোন শব্দটিতে বিদেশি প্রত্যয় ব্যবহৃত হয়েছে-
৬২. তালব্য বর্ণ কোনগুলো-
৬৩. Synonym for magnificance- Splendid
৬৪. লাইন একে অন্যের থেকে দুই মিটার দূরে সমান্তরালভাবে চলে যাচ্ছে । তারা একে অন্যের সাথে মিলিত হবে কত মিটার দূরে–
৬৫. রিকেটস কোন ভিটামিনের অভাবে দেখা দেয়- ভিটামিন ডি
৬৬. ঢেউ এর প্রতিশব্দ কোনটি- বীচি
৬৭. নির্দিষ্ট দামে একটি দ্রব্য বিক্রি করতে 20% ক্ষতি হলো এটি 60 টাকা বেশি মূল্যে বিক্রি করতে পারলে 10% লাভ হতো দ্রব্যটির ক্রয়মূল্য কত–
৬৮. Black and blue অর্থ কি–
৬৯. কোন বানানটি শুদ্ধ-
৭০. কোনটি present perfect tense এর উদাহরণ- I have heard the news
৭১. আন্তর্জাতিক ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট কোন দেশে অবস্থিত- ফিলিপাইন
৭২. ‍ A burning question means– An important question
৭৩. Bottom line means– The essential point
৭৪.বাংলাদেশের সরকার ব্যবস্থা কোন ধরনের- মন্ত্রিপরিষদ শাসিত
৭৫. He addressed Mr . Rahman and wished him good morning বাক্যটির direct speech হবে-
৭৬. ফারাক্কা বাঁধ তৈরি করা হয়েছে কোন নদীর উপর-গঙ্গা নদী
৭৭. SDG লক্ষ্যমাত্রা কোন সালের মধ্যে অর্জন করতে হবে- 2030 সালে
৭৮. একটি সংখ্যার বর্গ তার বর্গমূলের চেয়ে 78 বেশি হলে সংখ্যাটি-
৭৯. তার টাকা আছে কিন্তু দান করেন না কোন ধরনের বাক্য-যৌগিক
৮০.বস্তুর ভর ভূপৃষ্ঠে বা ভূ-পৃষ্ঠের উপরে অবস্থানের পরিবর্তনের কারণে- পরিবর্তিত হয়

______________________________________________________________________________________

বাংলদেশ পরিচিতি

✐ রাজধানী➟ ঢাকা
✐ বিভাগ ➟ 8 টি
✐ মেট্রোপলিটন➟ 7 টি
✐ জেলা➟ 64 টি
✐ উপজেলা➟ 487 টি
✐ পুলিশ থানা➟ 635 টি
✐ নৌ থানা ➟ 4 টি
✐ রেলওয়ে থানা➟ 21 টি
✐ ইউনিয়ন➟ 4,562 টি
✐ গ্রাম ➟ 87,191 টি
✐ মহল্লা➟ 6,016 টি
✐ মৌজা➟ 59,990 টি
✐ মুদ্রা ➟ টাকা
✐ সিটি কপোরেশন➟ 11 টি
✐ পৌরসভা➟ 320 টি
✐ মাতৃভাষা ➟ বাংলা
✐ দূতাবাস➟ 48 টি
✐ রেলস্টেশন➟ 505 টি
✐ ডাকঘর➟ 9,886 টি
✐ শিক্ষা বোর্ড➟ 10 টি
✐ সীমানা দৈর্ঘ্য➟ 4,68,480 কি মি

পৃথিবী পরিচিতি

✐ পৃথিবীর মোট রাষ্ট্র ২২৮ টি।
✐ পৃথিবীর স্বাধীন রাষ্ট্র ১৯৫ টি।
✐ পৃথিবীতে মোট মুসলিম রাষ্ট্র ৬৫ টি।
✐ OIC ভুক্ত মুসলিম রাষ্ট্র ৫৭ টি।
✐ সর্বশেষ স্বাধীন মুসলিম রাষ্ট্র ‘কসোভা’ (ইউরোপ)।
✐ পৃথিবীর মোট রাষ্ট্রসংখ্যার অনুপাতে মুসলিম রাষ্ট্রের হার
২৬%।
✐ পৃথিবীর মুসলিম জনসংখ্যা ১৪২ কোটি।
✐ পৃথিবীর জনসংখ্যার অনুপাতে মুসলিম জনসংখ্যার হার
২৩.১৮% ।
✐ জনসংখ্যার দিক দিয়ে বৃহত্তম মুসলিম রাষ্ট্র ইন্দোনেশিয়া।
✐ জনসংখ্যার দিক দিয়ে ক্ষুদ্রতম মুসলিম রাষ্ট্র মালদ্বীপ।
✐ জনসংখ্যার দিক দিয়ে পৃথিবীর বৃহত্তম মুসলিম শহর করাচী
(পাকিস্তান)।
✐ মুসলিম সংখ্যালঘিষ্ঠ রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে যে সবচে’বেশি
মুসলমান বাস করে ভারতে (১৬%)
✐ মোট জনসংখ্যার অনুপাতে বিভিন্ন মহাদেশের মুসলিম
জনসংখ্যার শতকরা হারঃ এশিয়া ২৪% ইউরোপ ১% আফ্রিকা
৫৯% উত্তর আমেরিকা ১.৫% দক্ষিণ আমেরিকা ০.৫০%

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত চুক্তি

বাংলাদেশ – ভারত সীমান্ত চুক্তি বিল পাস হয়ঃ ➟ ৬ মে
২০১৫ (রাজ্যসভায়) ➟ ৭ মে ২০১৫ (লোকসভায়)
ভুল শুধরে আবার পাশ হয় ১১মে ২০১৫। ১০০তম সংশোধনী ছিল
কিন্তু ১১৯তম হবে।
বাংলাদেশের মন্ত্রিসভায় বাংলাদেশ ➟ ভারত সীমান্ত
চুক্তি অনুসমর্থনের প্রস্তাব অনুমোদিত হয় ➟ ২৫ মে ২০১৫
স্থল সীমান্ত চুক্তি ➟ ১৯৭৪ ও ২০১১ সালের প্রটোকল
অনুমোদনের দলিল বিনিময় হয় ৬জুন, ২০১৫।
আনুষ্ঠানিকভাবে কার্যকর ➟ ৩১ জুলাই ২০১৫।
বাংলাদেশ-ভারত স্থল সীমান্ত চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল
➟ ১৬ মে ১৯৭৪।
বাংলাদেশের ভেতর ভারতের ১১১টি ছিট মহলের আয়তন ➟
১৭,১৫৮ একর।
ভারতের ভেতর বাংলাদেশের ৫১টি ছিট মহলের আয়তন ➟
৭,১১০ একর।
৩১ জুলাই ২০১৫ মধ্যরাতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্য
আনুষ্ঠানিকভাবে ছিটমহল বিনিময়ের মাধ্যমে উভয় দেশের
মানচিত্র থেকে ছিটমহল নামের শব্দটি উঠে যায়।
অচিহ্নিত সীমানা ৬.৫ কি.মি।
সীমান্তের মধ্যে চিহ্নিত সীমান্ত ৪.৫ কি.মি।
অচিহ্নিত রয়ে গেছে বিলোনিয়া সেক্টরে মুহুরীর চরের শুধু
২কি.মি সীমানা।
অপদখলীয় জমি ৫০৪৪.৭২ একর।
বাংলাদেশ পায় ৬টি স্থানে ২২৬৭. ৬৮২ একর।
ভারত পায় ১২টি স্থানে ২৭৭৭.০৩৮ একর।
মুজিব- ইন্দিরা চুক্তি (স্থল সীমান্ত চুক্তি) স্বাক্ষরিত হয়
১৬ মে, ১৯৭৪।
বাংলাদেশে সংসদে পাশ হয় ২৩ নভেম্বর ১৯৭৪।
(সংবিধানের ৩য় সংশোধনী)

নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশ

নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশঃ বাংলাদেশ
বিশ্বব্যাংক কর্তৃক স্বীকৃতি লাভঃ ১ জুলাই ২০১৫
বিশ্বব্যাংক এর স্তর বিভাগঃ
১) নিম্ন আয়ের দেশ = মাথাপিছু আয় ১০৪৫ ডলার বা তার নিচে
২) নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশ= মাথাপিছু আয় ১০৪৬ থেকে ৪১২৫
ডলার
৩) উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশ = মাথাপিছু আয় ৪১২৬ থেকে ১২৭৩৬
ডলার
৪) উচ্চ আয়ের দেশ = মাথাপিছু আয় ১২৭৩৬ ডলারের বেশি
বিশ্বব্যাংকের তালিকা অনুযায়ী বর্তমানে, ১) নিম্ন আয়ের
দেশ = ৩১ টি ২) নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশ= ৫১ টি ৩) উচ্চ মধ্যম
আয়ের দেশ = ৫৩ টি ৪) উচ্চ আয়ের দেশ = ৮০ টি
বিশ্বব্যাংকের এবারের রিপোর্টে,
• নিম্ন আয়ের দেশ থেকে নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত=
বাংলাদেশ, কেনিয়া, মিয়ানমার, তাজিকিস্তান।
• উচ্চ মধ্যম আয়ের দেশ থেকে উচ্চ আয়ের দেশে উন্নীত =
আর্জেন্টিনা, হাঙ্গেরি, ভেনিজুয়েলা, সেচেলেস।
বিশ্বব্যাংকের এবারের রিপোর্টে,
• সবচেয়ে কম মাথাপিছু আয়ের দেশ = মালায়ি
• সবচেয়ে বেশি মাথাপিছু আয়ের দেশ = মোনাকো
বাংলাদেশ এখনো স্বল্পোন্নত দেশ (LDC) তালিকাতেই আছে।
LDC থেকে বের হতে হলে তিনটি সূচক অতিক্রম করতে হবেঃ
১) অর্থনীতির নাজুকতার সূচক
২) মানব উন্নয়ন সূচক
৩) মাথাপিছু আয়ের সূচক

————————–

জাতীয় বাজেট ২০১৫-১৬

১) বাজেট ঘোষণা ৪ জুন ২০১৫; বাজেট কার্যকর ১ জুলাই ২০১৫
থেকে।
২) মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন দ্বিতীয়
মেয়াদের জন্য নির্বাচিত সরকারের এটি ২য় বাজেট।
৩) বাংলাদেশে ঘোষিত ৪৫তম বাজেট।
৪) আওয়ামীলীগ সরকারের ১৬তম বাজেট।
৫) অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবুল মুহিতের ৯ম বাজেট (২০০৯-১০
অর্থবছর থেকে ২০১৫-১৬ অর্থবছর; ১৯৮২-৮৩ ও ১৯৮৩-৮৪] এক নজরে জাতীয় বাজেট ২০১৫-১৬
১) মোট বাজেট ২ লাখ ৯৫ হাজার ১০০ কোটি টাকা।
২) জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশ।
৩) মূল্যস্ফীতি ৬.২ শতাংশ।
৪) এডিপি ৯৭,০০০ কোটি টাকা।
২০১৫-১৬ বাজেটে করমুক্ত আয়সীমা
১) ব্যক্তিশ্রেণীঃ ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা।
২) নারী ও ৬৫ বছরের অধিক বয়স্কঃ ৩ লাখ টাকা।
৩) প্রতিবন্ধী ব্যক্তিঃ ৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকা।
৪) গেজেটভূক্ত মুক্তিযোদ্ধা করদাতাঃ ৪ লাখ ২৫ হাজার টাকা।
২০১৫-১৬ বাজেটে বরাদ্দপ্রাপ্ত বিভিন্ন বিভাগ/খাত
১) সর্বোচ্চ বরাদ্দ- অর্থ বিভাগ ৯১,৪৪৬ কোটি টাকা।
২) সর্বোচ্চ বরাদ্দ রাখা হয়েছে জনপ্রশাসন খাতে ৫৬,৬৯৬ কোটি টাকা।
৩) কৃষিখাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১৯,৯৭৯ কোটি টাকা।
৪) শিক্ষা প্রযুক্তি খাতে বরাদ্দ ৩৪,৩৭০ কোটি টাকা।
৫) স্বাস্থ্য খাতে ১২,৬৯৫ কোটি টাকা।
৬) প্রতিরক্ষাখাতে বরাদ্দ ১৮,৩৮৩ কোটি টাকা।
৭) যোগাযোগ ও পরিবহন খাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ২৮,৭০০ কোটি টাকা।

২০১৫-১৬ বাজেটে বিভিন্ন খাতের অবদান

১) কৃষি খাতের অবদানঃ ১৫.৯৬% (সাময়িক)
২) শিল্প খাতের অবদানঃ ৩০.৪২% (সাময়িক)
৩) সেবা খাতের অবদানঃ ৫৩.৬২% (সাময়িক)
৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা
মেয়াদকাল- ১ জুলাই ২০১৫ থেকে জুন ২০২০; লক্ষ্যমাত্রা – ৬টি।
যথা-
১) কারিগরি এবং প্রযুক্তি জ্ঞানসম্পন্ন মানবসম্পদ গড়ে
তোলা।
২) বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও যোগাযোগ খাতে অবকাঠামোখাতে
সীমাবদ্ধতা দূর।
৩) কৃষিভিত্তিক শিল্পসহ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পখাতের উন্নয়ন
কৌশল নির্ধারণ।
৪) আইসিটি-স্বাস্থ্য-শিক্ষা¬ সংক্রান্ত সেবা রপ্তানিতে
সুনির্দিষ্ট নীতিকৌশল প্রণয়ণ।
৫) সরকারী-বেসরকারী বিনিয়োগ গতিশীলতা আনয়ন।
৬) রপ্তানিতে গতিশীলতা ও পণ্যের বৈচিত্রায়ণ।
Some Targeted Rates in 7th Five Year Plan–Unemployment – 0%,
GDP – 8%, Poverty rate – 16% , Export – 5500 Crore US Dollar
————————–

আমদানি-রপ্তানি

১) বেশি আমদানিঃ চীন, (ভারত ২য়- এশিয়ার ১ম)
২) বেশি রপ্তানিঃ যুক্তরাষ্ট্র
৩) সর্বোচ্চ বিনিয়োগকারী দেশঃ যুক্তরাজ্য (১ম) , দক্ষিন
কোরিয়া (২য়)
৪) বিশ্বের ৪৪টি দেশে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক মিশন রয়েছে।
৫) রপ্তানি আয়ে/বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনকারী ১ম তৈরি পোশাক, ২য় নীটওয়্যার।
৬) ওষুধ রপ্তানি করে ১৬০টি দেশে।
৭) যুক্তরাষ্ট্র পণ্য আমদানিতে শুল্ক ও কোটামুক্ত প্রবেশাধিকার প্রথা চালু করে ১লা জানুয়ারি ১৯৭৬ সালে।
৮) যুক্তরাষ্ট্র জিএসপি সুবিধা স্থগিত করে ২৭ জুন ২০১৩।
৯) স্থগিতাদেশ কার্যকর হয় ২ সেপ্টেম্বর ২০১৩।
১০) GSP ফিরে পেতে বাংলাদেশকে USA শর্ত দিয়েছে- ১৬টি।
১১) যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে তৈরি পোশাক রপ্তানিতে
বাংলাদেশ ৩য়
১২) মুক্তবাজার অর্থনীতি বিশ্বব্যাপী চালু হয় ২০০৫ সাল থেকে।
১৩) বাংলাদেশের তৈরী পোশাক শিল্পকে শিশু শ্রমিকমুক্ত ঘোষণা করা হয় ১ নভেম্বর ১৯৯৬ সালে।
১৪) বাংলাদেশে ইপিজেড ১০টি (৮টি সরকারি ও ২টি বেসরকারি)
১৫) রেমিট্যান্স অর্জনে বাংলাদেশের অবস্থান ৮ম।
১৬) সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স পায় সৌদি আরব/মধ্যপ্রাচ্য থেকে।
১৭) সবচেয়ে বেশি বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে যুক্তরাষ্ট্র থেকে।
১৮) সর্বাধিক জনশক্তি রপ্তানি হয় সৌদি আরবে।
১৯) প্রবাসীদের প্রেরিত অর্থের (রেমিট্যান্স) পরিমাণ ১০৮ কোটি ৭৬ লাখ ডলার। (নভেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত)

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ

১) বীরত্বসূচক খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ৬৭৭ জন – বীরশ্রেষ্ঠ
৭ জন – বীর উত্তম ৬৯ জন – বীর বিক্রম ১৭৫ জন – বীর প্রতীক ৪২৬ জন
২) মুক্তিযুদ্ধের সময় সমগ্র দেশকে মোট ১১টি সেক্টরে বিভক্ত করা হয়।- চট্টগ্রাম ১ নং সেক্টর- ঢাকা ২ নং সেক্টর – মুজিবনগর ৮ নং সেক্টর
৩) মুক্তিযুদ্ধের সময় সমগ্র দেশকে মোট ৬৪টি সাব-সেক্টরে বিভক্ত করা হয়।
৪) জীবিত সেক্টর কমান্ডার ৪ জন।
৫) ভারতে শরণার্থী শিবির স্থাপন করা হয় ১৪১টি।
৬) মুক্তিযুদ্ধে মোট নারী মুক্তিযোদ্ধা ২০৩ জন।
৭) বীরাঙ্গনা স্বীকৃতি পেয়েছেন ৪১জন (অক্টোবর ২০১৫)।
৮) সবচেয়ে বেশি নারী মুক্তিযোদ্ধা দিনাজপুর থেকে ২১ জন।
৯) বীরপ্রতীক খেতাবপ্রাপ্ত মহিলা ২ জন (ড. সেতারা বেগম ও তারামন বিবি)।
১০) ২১শে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয় ইউনেস্কোর’র ৩০ তম অধিবেশনে।

 
জনসংখ্যা, আদমশুমারী ও উপজাতি সংক্রান্ত তথ্যাদি

১) মোট জনসংখ্যা ১৫.৭৯ কোটি
২) জনসংখ্যার ঘনত্ব ১০৩৫ জন (প্রতি বর্গ কিলোমিটারে)
৩) জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ১.৩৬%
৪) নারী ও পুরুষের অনুপাত ১০০:১০৪.৯
৫) গড় আয়ু ৭০.৭ বছর
৬) স্বাক্ষরতার হার (৭+ বছর),২০১৫: ৬২.৩%; পুরুষ ৬৫.০% ও মহিলা ৫৯.৭%
৭) মাতৃমৃত্যুর হার ১.৯৭%
৮) দারিদ্র্য সীমার নিচে বসবাস করে ৩১.৫%
৯) চরম দারিদ্র্য সীমার নিচে বসবাস করে ১৭.৬%
১০) শিশু মৃত্যুহার [এক বছরের কমবয়সী (প্রতি হাজার জীবিত জন্মে)] ৩৩ জন
১১) আদমশুমারি ৫টি (কৃষিশুমারি ৪টি)
১২) সরকারিভাবে স্বীকৃত দেশের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সংখ্যা ৪৮টি
১৩) উপজাতীয় সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউট ২টি
১৪) উপজাতীয় সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ১টি
সূত্রঃ বাংলাদেশ অর্থনৈতিক সমীক্ষা ২০১৫
————————–

মাথাপিছু আয়, শ্রমশক্তি ও কর্মসংস্থান

১) মাথাপিছু আয় ১৩১৪ মার্কিন ডলার বা ১,০২,০২৬ টাকা।
২) করমুক্ত আয়সীমা ২,৫০,০০০ টাকা।
৩) জিডিপি’র প্রবৃদ্ধি ৭% ।
৪) মূল্যস্ফীতির লক্ষ্যমাত্রা ৬.২ শতাংশ।
৫) ক্রয়ক্ষমতার ভিত্তিতে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান ৩৬
তম (নমিনাল মূল্যের ভিত্তিতে ৫৮তম)।
৬) বর্তমানে মোট মাথাপিছু ঋণের পরিমাণ ৪০০ ডলার
(বৈদেশিক ঋণ ১৭০ ডলার)।
————————–
দারিদ্র্য সমাচার
﹌﹌﹌﹌﹌﹌
১) গড় দারিদ্র্যের হার – ৩০.৭%
২) নিম্ম দারিদ্র্যরেখায় বাস করে মোট জনসংখ্যার – ১৭.৬%
৩) উচ্চ দারিদ্র্যরেখায় বাস করে মোট জনসংখ্যার – ৩১.৫%
৪) সবচেয়ে কম দরিদ্র মানুষ অধ্যুষিত বিভাগ – সিলেট (২৫.৫%)
৫) সবচেয়ে বেশি দরিদ্র মানুষ অধ্যুষিত বিভাগ – রংপুর (৪২.%)
৬) সবচেয়ে বেশি দরিদ্র মানুষ অধ্যুষিত জেলা – কুড়িগ্রাম
(৬৩.৭%
৭) সবচেয়ে কম দরিদ্র মানুষ অধ্যুষিত জেলা – কুষ্টিয়া (৩.৬%)
সূত্রঃ বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর দারিদ্র্য মানচিত্র-
২০১১ সালের আদমশুমারি ও গৃহগণনা।
৮) দারিদ্র্যের হার- ২৪%
সূত্রঃ জনসংখ্যা ও জনতাত্ত্বিক সূচক -২০১৩ (প্রকাশঃ ১৪
জুলাই ২০১৫; প্রকাশকঃ বিবিএস )
৯) সর্বাধিক দরিদ্র মানুষের দেশ – ভারত (৩৩%); বাংলাদেশে
৬%।
১০) দারিদ্র্য ঘনত্বে র্শীষ দেশ – কঙ্গো প্রজাতন্ত্র।
সূত্রঃ বিশ্বব্যাংক প্রতিবেদন- ২০১৪
————————–
বাংলাদেশের অর্থনীতি
﹌﹌﹌﹌﹌﹌
১) বাংলাদেশে VAT-এর হার ১৫%।
২) কর ২ প্রকারঃ ক) প্রত্যক্ষ কর ও খ) পরোক্ষ কর।
৩) বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ঘোষিত বাজেট ৪৫টি।
৪) বাংলাদেশে অর্থবছর ধরা হয় ১লা জুলাই থেকে ৩০ জুন।
৫) জাতীয় সংসদে বাজেট পাশ হয় ৩০ জুন।
৬) বাংলাদেশে প্রথম বাজেট পাশ হয় ৩০ জুন ১৯৭২ সালে।
৭) সবচেয়ে বেশি বাজেট পাশ করেন অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমান
(১২টি), ২য় সর্বোচ্চ এসএএমএস কিবরিয়া (৬টি)।
৮) রাষ্ট্রপতি হিসেবে বাজেট পেশ করেছেন ১ জন (রাষ্ট্রপতি
জিয়াউর রহমান)।
﹌﹌﹌﹌﹌﹌ f বাজেট দুই প্রকার : ক) উদ্বৃত্ত বাজেট ও খ)
ঘাটতি বাজেট।
১০) বাংলাদেশের বাজেট ঘাটতি বাজেট।
১১) বাজেটের দুটি অংশ : ক) রাজস্ব বাজেট ও খ) উন্নয়ন
বাজেট।
১২) তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে বাজেট ৩টি।
১৩) সামরিক সরকারের আমলে বাজেট ৮টি।
১৪) রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকারের আমলে বাজেট ৭টি।
১৫) মূল্য সংযোজন কর আইন জাতীয় সংসদে পাশ হয় ১০ জুলাই
১৯৯১ সালে।
১৬) সরকারের মোট আয়ের ৮০ শতাংশের বেশি আসে রাজস্ব
আয় থেকে।
১৭) রাজস্ব আদায়ে খাতভিত্তিক সবচেয়ে বেশি অবদান
আয়করের (৩২%), ২য় সর্বোচ্চ অবদান মূল্য সংযোজন করের (২৫%)।
১৮) সরকারের ব্যয় ২ ধরণের : ক) উন্নয়ন ব্যয় ও খ) অনুন্নয়ন ব্যয়।
————————–
বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা
﹌﹌﹌﹌﹌﹌
১) শিক্ষানীতি প্রণীত হয়েছে ৩টি
২) শিক্ষা কমিশন ৬টি [সর্বশেষ কবির চৌধুরী শিক্ষা কমিশন
(২০০৯)] ৩) শিক্ষার স্তর ৪টি
৪) সারাদেশব্যপী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা
৬৩৮৬৫টি
৫) নিরক্ষরমুক্ত জেলা ৭টি
৬) প্রাথমিক শিক্ষার বয়সসীমা ৬-১১ বছর
৭) পরমাণু চিকিৎসা কেন্দ্র ১৩টি
৮) সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ৩৮টি (প্রস্তাবিত রবীন্দ্র
বিশ্ববিদ্যালয় সহ)
﹌﹌﹌﹌﹌﹌
১০) সরকারি মেডিকেল কলেজ ৩১টি (তথ্যসূত্র : প্রথম আলো)
১১) মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ৩টি (প্রস্তাবিত রাজশাহী
মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় সহ)
————————–
বিভিন্ন রিপোর্ট-সমীক্ষা-সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান
﹌﹌﹌﹌﹌﹌
১) মানব উন্নয়ন রিপোর্ট ১৪২তম (শীর্ষ দেশ নরওয়ে, সর্বনিম্ন
দেশ নাইজার)
২) জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে সেনা প্রেরণ ১ম
৩) গণতন্ত্র সূচকে বাংলাদেশ ৮৫তম
৪) বাংলাদেশ এলডিসি চেয়ারম্যান নির্বাচিত (২০১৫-২০১৮
মেয়াদে)
৫) বিশ্ব সক্ষমতা সূচকে ১০৭তম
৬) মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহারে ১৪৯তম
৭) বাল্যবিয়ে প্রবণ তালিকায় বিশ্বে ৪র্থ (এশিয়ায় ১ম)
৮) বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে ২৩তম
৯) খাদ্য সংগ্রহের দিক থেকে ১৬তম
১০) পাট রপ্তানিতে ১ম
১১) আলু উৎপাদনে ৭ম
১২) আম উৎপাদনে ৭ম
১৩) পেয়ারা উৎপাদনে ৮ম
১৪) মাছ উৎপাদনে ৫ম
১৫) মিঠা পানির মৎস্য উৎপাদনে ৪র্থ (বাংলাদেশের চেয়ে
এগিয়ে রয়েছে চীন, ভারত ও মিয়ানমার)
১৬) বছরে ৩৫ লাখ মেট্রিক টন মাছ উৎপাদিত হয়
১৭) ধান উৎপাদনে ৪র্থ
১৮) চা বাগান ১৬৬ টি
১৯) চা পানে ১৬তম
২০) চিনিকল ১৫টি
২১) ফিফা র্যাংকিংয়ে ১৮২তম
২২) দুর্নীতি সূচকে ১৪তম
২৩) ইন্টারনেট ব্যবহারে ৬৩তম
২৪) OCR চালু করতে ৩৭তম
২৫) লিঙ্গ বৈষম্য দূরীকরণে ৬৮তম
২৬) বাংলা ভাষা ব্যবহারে ৭ম
২৭) বাংলাদেশী পন্য শুল্ক মুক্ত সুবিধা পায় ৪৯টি দেশে
২৮) ঢাকা মেগাসিটিতে ১১তম
২৯) বাংলাদেশে ৫৩ টি দেশের ৬৯টি মিশন রয়েছে
৩০) বিদ্যুৎ কেন্দ্র ১০০টি
৩১) স্থলবন্দর ২২টি (সর্বশেষ শেওলা, বিয়ানীবাজার, সিলেট)
৩২) নদীবন্দর ২৪টি (সর্বশেষ ফরিদপুর ও ঘোড়াশাল)
৩৩) সমুদ্রবন্দর ৩টি (সর্বশেষ পায়রা, ১৯/১১/২০১৩)
৩৪) কয়লাখনি ৬টি (সর্বশেষ নওগাঁ)
৩৫) গ্যাসক্ষেত্র ২৬ (সর্বশেষ রূপগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ; ২১/৬/২০১৪)
৩৬) উৎপাদনরত গ্যাসক্ষেত্র ২০টি
৩৭) দেশে পাট কল ৩৮টি
৩৮) ১৯৭১ সালে পাট কল ছিল ৭৩টি
৩৯) মোট বস্ত্র কল ৬৫টি
৪০) সরকারি বস্ত্র কল ২৪টি
৪১) দেশে উৎপাদিত বস্ত্র স্থানীয় চাহিদা পূরণ করে ৯%
৪২) দেশে একজন শ্রমিক এর সর্বনিম্ন বেতন ৫৫ ডলার
৪৩) মোট সিমেন্ট কারখানা ১৪ টি যার মধ্যে ৫ টি সরকারি
৪৪) জাহাজ নির্মাণ ও মেরামত কারখানা ৩টি
৪৫) অস্ত্র কারখানা ১টি (গাজীপুর)
৪৬) অর্থনৈতিক অঞ্চল (ইকোনমিক জোন) ১৭টি
৪৭) বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় বনভূমি- ২৮টি জেলায়
৪৮) সুন্দরবনে বাঘের সংখ্যা ৮৩-১৩০টি
৪৯) বাংলাদেশের কর্মী রয়েছে- বিশ্বের ১৬০টি দেশে।
৫০) ২০১৫ সালে ব্রিটিশ আইনসভা নির্বাচনে বাংলাদেশী
অংশগ্রহণ করে- ১১জন।
৫১) ২০১৫ সালে ব্রিটিশ আইনসভা নির্বাচনে বাংলাদেশী জয়
লাভ করে- ৩ জন।
৫২) বৈশ্বিক সমৃদ্ধি সূচকে বিশ্বে ১০৩তম (সার্কভুক্ত দেশে ৪র্থ,
১ম শ্রীলংকা, শীর্ষ দেশ নরওয়ে)
৫৩) বিশ্ব সন্ত্রাসবাদ সূচকে ২৩তম (র্শীর্ষ দেশ ইরাক)
৫৪) ডুয়িং বিজনেস রিপোর্টে বিশ্বে ১৭৪তম (সার্কভুক্ত দেশে
৭ম, ১ম ভুটান; শীর্ষ দেশ সিঙ্গাপুর)
৫৫) বৈশ্বিক উদ্দ্যোক্তা সূচকে বিশ্বে ১২৫তম (সার্কভুক্ত
দেশে ৪র্থ, ১ম শ্রীলংকা; শীর্ষ দেশ যুক্তরাষ্ট্র)
————————–

গণমাধ্যম সংশ্লিষ্ট বিষয়াদি
১) সরকারি টিভি চ্যানেল ৩টি
২) বেসরকারি টিভি চ্যানেল ৪১টি
৩) দৈনিক প্রকাশিত পত্রিকা ৯০২টি
————————–
আগামীর বাংলাদেশ
১) বাংলাদেশকে দারিদ্র্য মুক্ত ঘোষণা করা হবে ২০২০
সালের মধ্যে।
২) ৬ষ্ঠ আদমশুমারি হবে ২০২১ সালে।
৩) সবার জন্য বিদ্যুৎ পৌঁছানোর লক্ষ্যমাত্রা ২০২১ সালের
মধ্যে।
————————–
ব্যাংক-বীমা ও মুদ্রাব্যবস্থা
﹌﹌﹌﹌﹌﹌
১) রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক ৬টি (সর্বশেষ বেসিক
ব্যাংক)
২) বিশেষায়িত ব্যাংক ৯টি (সর্বশেষ পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক)
৩) মোট ব্যাংক ৬৩টি
৪) তালিকাভুক্ত ব্যাংক ৫৬টি
৫) বিদেশি বেসরকারি ব্যাংক ৯টি
৬) ইসলামী ব্যাংক ৮টি
৭) বিদেশী ব্যাংক ৯টি
৮) বাংলাদেশ ব্যাংক এর সুদের হার ৫%
৯) বাংলাদেশ ব্যাংকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ২৭
বিলিয়ন ডলার।
১০) বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের মেয়াদকাল ৪ বছর।
১১) বাংলাদেশ ব্যাংকের শাখা ১০টি। (সর্বশেষ ময়মনসিংহ
১৬ জানুয়ারি ২০১৩)
১২) বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পরিষদের সদস্য সংখ্যা
১০ জন।
১৩) বাংলাদেশে আইএমএফ-এর কার্যালয় বাংলাদেশ
ব্যাংকের ৫ম তলায়।
১৪) সরকারি মুদ্রা ৩টি। যথাঃ ১,২ ও ৫ টাকা।
১৫) ব্যাংক নোট ৬টি। যথাঃ ১০,২০,৫০,১০০,৫০
০ ও ১০০০ টাকা।
১৬) সরকারি নোট বের করে অর্থ মন্ত্রণালয়। এতে অর্থ সচিবের
স্বাক্ষর থাকে।
১৭) ব্যাংক নোট বের করে বাংলাদেশ ব্যাংক এবং এতে
বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের স্বাক্ষর থাকে।
১৮) উপমহাদেশে প্রথম কাগজের মুদ্রা চালু হয় ১৮৫৭ সালে।
১৯) বাংলাদেশে প্রথম কাগজের নোট চালু হয় ৪ মার্চ ১৯৭২
সালে। (১ টাকা ও ১০০ টাকার নোট)
২০) সিকিউরিটি প্রিন্টিং কর্পোরেশন (বাংলাদেশ) লি.
প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৮৮ সালে।
২১) উপমহাদেশে প্রথম কাগজের মুদ্রার প্রচলন করেন লর্ড
ক্যানিং।
————————–

পদক-পুরস্কার-সম্মাননা
﹌﹌﹌﹌﹌﹌
১) ২০১৫ সালে একুশে পদক পান মোট- ১৫ জন
২) ২০১৫ সালে বাংলা একাডেমী পুরস্কার পান মোট- ৭ জন।
৩) ২০১৫ সালে বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্যে
দেশের ৭ জন ব্যক্তিকে “স্বাধীনতা পুরস্কার ২০১৫” প্রদান করা
হয়। তবে ন্যাপের সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ
স্বাধীনতা পুরস্কার প্রত্যাখ্যান করেন।
• স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ : মানিক চৌধুরী (মরণোত্তর), মামুন
মাহমুদ (মরণোত্তর) ও শাহ এ এম এস কিবরিয়া (মরণোত্তর)
• সাহিত্য : অধ্যাপক আনিসুজ্জামান
• সংস্কৃতি : নায়করাজ আবদুর রাজ্জাক
• গবেষণা ও প্রশিক্ষণ : মোহাম্মদ হোসেন মণ্ডল
• সাংবাদিকতা : সন্তোষ গুপ্ত
৪) র্যামন ম্যাগসেসে পুরুস্কার ২০১৪ পাওয়া বাংলাদেশী –
সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান। তিনি বাংলাদেশের পরিবেশ
সমিতি (বেলা-এর প্রধান নির্বাহী। তিনি এই পুরস্কারপ্রাপ্ত
১১তম বাংলাদেশী এবং ম্যাগসেসে বিজয়ী ৩য় নারী।
৫) ২০১৪ সালে ভারতের পদ্মভূষণ – বাংলাদেশের অধ্যাপক
আনিসুজ্জামান
৬) অনন্য সাহিত্য পুরস্কার ১৪১৯ – কাজী রোজি
৭) প্রথম নরী ও দ্বিতীয় বাংলাদেশী হিসেবে বিজনেস ফর
পিস অ্যাওয়ার্ড ২০১৪ – সেলিনা আহমেদ
৮) ফরচুন ম্যাগাজিন জরিপে বিশ্বের ৫০ প্রভাবশালীর
একমাত্র বাংলাদেশী – স্যার ফজলে হাসান আবেদ
৯) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাউথ সাউথ পুরস্কার গ্রহণ করেন
– ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৩ (দারিদ্র্য বিমোচনে অবদান)
১০) জাতিসংঘের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি বিষয়ক
সংস্থা UNESCO এর Peace Tree (শান্তি বৃক্ষ) পুরস্কার : শেখ
হাসিনা (কিশোরী ও নারী শিক্ষায় অবদানের জন্য)
১১) The Championship of the Earth পুরস্কার পেয়েছেন মাননীয়
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ক্যাটাগরি: Policy Leadership)
১২) WHO-এর এক্সিলেন্স ইন পাবলিক অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল
সার্ক সাহিত্য পুরস্কার ২০১৫ : সেলিনা হোসেন
১৩) বঙ্গবিভূষন পদক (পশ্চিমবঙ্গ) : ফিরোজা বেগম
১৪) টানা ২য় বারের মত WSIS পুরস্কার ২০১৫ লাভ করেন :
বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের Access to

অর্থনৈতিক সমীক্ষা -২০১৫।
﹌﹌﹌﹌﹌﹌
1) মোট জনসংখ্যাঃ ১৫.৭৯ কোটি
2) জনসংখ্যা বৃদ্ধির হারঃ ১.৩৬ %
3) পুরুষ:মহিলা :: ১০৪.৯ : ১০০
4) জনসংখ্যার ঘনত্তঃ ১,০৩৫ জন
5) শিশু মৃত্যু হারঃ ৩৩ জন (এক বছরের কম বয়সী)
6) প্রত্যাশিত গড় আয়ুঃ ৭০.৭ বছর
7) সাক্ষরতার হারঃ ৬২.৩%
8) দারিদ্রের নিম্নসীমাঃ ১৭.৬%
9) জি.ডি.পিঃ ১৫,১৩,৬০০ কোটি টাকা (চলতি মূল্য)
10) মাথাপিছু জি.ডি.পিঃ ১,২৩৫ (মার্কিন ডলার)/ ৯৫,৮৬৪
টাকা
11) মাথাপিছু আয়ঃ ১,৩১৪ (মার্কিন ডলার)/ ১০২০২৬টাকা
12) মোট তফসিলি ব্যাংকঃ ৫৬ টি
13) আর্থিক প্রতিষ্ঠানঃ ৩১ টি (নন ব্যাংক)
14) জি.ডি.পি প্রবৃদ্ধিঃ ৭.০০%
15) মূল্যস্ফীতিঃ ৬.২%
16) কৃষি খাতের অবদানঃ ১৫.৯৬% (সাময়িক)
17) শিল্প খাতের অবদানঃ ৩০.৪২% (সাময়িক)
18) সেবা খাতের অবদানঃ ৫৩.৬২% (সাময়িক)
19) সর্বোচ্চ বিনিয়োগকারী দেসঃ যুক্তরাজ্য (১) , দক্ষিন
কোরিয়া (২)
20) বেশী আমদানীঃ চীন, ভারত(২য়- এশিয়ার ১ম)
21) বেশী রপ্তানীঃ যুক্তরাষ্ট্র

**অর্থনৈতিক সমীক্ষা ২০১৮
————————————————–
১। মোট জনসংখ্যা = ১৬ কোটি ৮ লক্ষ।
২। জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার = ১.৩৭%
৩। পুরুষ – মহিলা অনুপাত = ১০০.৩ঃ১০০
৪। জনসংখ্যার ঘনত্ব = ১০৯০ জন (বর্গ কি:মি)
৫। এক বছরের কম বয়সী শিশু মৃত্যুহার = ২৮ জন (প্রতি হাজারে)
৬। প্রত্যাশিত গড় আয়ু = ৭১.৬ বছর
৭। সাক্ষরতার হার = ৭১%
৮। দারিদ্র্যের ঊর্ধ্বসীমা = ২৪.৩%
৯। দারিদ্র্যের নিম্নসীমা = ১২.৯%
১০। GDP প্রবৃদ্ধির হার = ৭.৬৫%
১১। চলতি মূল্যে মাথাপিছু আয় = ১৭৫২ মার্কিন ডলার
১২। চলতি মূল্যে মাথাপিছু GDP = ১৬৭৭ মার্কিন ডলার
১৩। মূল্যস্ফীতি = ৫.৮৩% (জুলাই ১৭- এপ্রিল ১৮)
১৪। মোট ব্যাংক = ৫৭ টি
> রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক ৬ টি,
>বিশেষায়িত ব্যাংক ২ টি,
>বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক ৪০ টি,
>বৈদেশিক ব্যাংক ৯ টি
>ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান ৩৪ টি
>মোট বীমা ৭৮ টি, সরকারি জীবন বীমা ১ টি, সাধারণ বীমা ১ টি, বিদেশি বীমা ১টি।
১৫। সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স আসে = সৌদিআরব থেকে
১৫। সবচেয়ে বেশি রপ্তানি করা হয় = যুক্তরাষ্ট্র
১৬। সবচেয়ে বেশি আমদানি করা হয় = চীন
১৭। ঔষধ রপ্তানি করা হয় = ১৪৫ টি দেশে
১৮। মোট স্থাপিত বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা = ১৩,৮৪৬ মেগাওয়াট
১৯। মোট বিদ্যুৎ উৎপাদন = ৩৫,৪৭৪ মিলিয়ন কিলোওয়াট -ঘণ্টা
২০। আবিষ্কৃত মোট গ্যাসক্ষেত্র = ২৭ টি
২১। প্রাকৃতিক গ্যাসের প্রাথমিক মোট মজুদ = ৩৯.৯ ট্রিলিয়ন ঘনফুট
২২। প্রাকৃতিক গ্যাসের উত্তোলনযোগ্য মজুদ = ২৭.৭৬ ট্রিলিয়ন ঘনফুট
২৩। মোবাইল গ্রাহক = ১৪.৭ কোটি
২৪। ইন্টারনেট ইউজার = ৮.০৮ কোটি
২৫। বাংলাদেশ বেশি বৈদেশিক সাহায্য পায় = জাপান থেকে
২৬। সংস্থা হিসেবে বাংলাদেশ বেশি বৈদেশিক সাহায্য পায় = IDA থেকে
২৭। GDP তে অবদান (সাময়িক)
কৃষি = ১৪.১০%
শিল্প = ৩৩.৭১%
সেবা = ৫২.১৮%
[N.B. পরিসংখ্যান ব্যুরোর রিপোর্ট অনুযায়ী বাংলাদেশের মানুষের গড় আয়ু ৭২ বছর]।
***২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেট:
¤ তম: ৪৮ তম বাজেট (একটি অন্তবর্তীকালীন বাজেটসহ)
¤ বাজেট ঘোষণা/উপস্থাপন করা হয়: ০৭ জুন, ২০১৮।
¤ বাজেট পাশ : ২৮ জুন, ২০১৮।
¤ বাজেটের আকার : ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৫৭৩ কোটি টাকা।
¤ বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে (ADP) বরাদ্ধ : ১লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা।
¤ জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার ধরা হয়েছে : ৭.৮০%
¤ মূল্যস্ফীতির হার ধরা হয়েছে : ৫.৬%
¤ সবচেয়ে বেশি বাজেট বরাদ্দ জনপ্রশাসন : ৮৩, ৫০৯ কোটি
¤ দ্বিতীয় সবচেয়ে বেশি বাজেট বরাদ্দ শিক্ষা ও প্রযুক্তি খাতে = ৬৭,৯৪৪ কোটি
¤ করমুক্ত আয়সীমা: সাধারণ সীমা (ব্যক্তি শ্রেণি) : ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা।
বিশ্বকাপ ফুটবল -২০১৮

♥চ্যাম্পিয়ন: ফ্রান্স (গোল লাইন ৪-২, এ নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন। এ পর্যন্ত মোট ৮টি দেশ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে।);
♠রানার্স আপ: ক্রোয়েশিয়া (ক্রোয়েশিয়া ইউরোপের একটি বলকান রাষ্ট্র);
♦তৃতীয় স্থান: বেলজিয়াম;
♦ফেয়ার প্লে পুরস্কার: স্পেন;
★বিশ্বকাপ ফাইনাল ম্যাচের স্টেডিয়াম: লুঝকিনি স্টেডিয়াম, মস্কো;
★গোল্ডেন বল (আসরের সেরা খেলোয়ার): লুকা মড্রিচ (ক্রোয়েশিয়া);
★গোল্ডেন বুট (আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা): হ্যারি কেইন (ইংল্যান্ড, ৬ গোল);
★গোল্ডেন গ্লাভস (আসরের সেরা গোলরক্ষক): থিওবাথ কর্তোয়া (বেলজিয়াম);
★সিলভার বল (আসরের সেরা ইমার্জিং প্লেয়ার): কিলিয়ান এমবাপ্পে (ফ্রান্স);
★ফাইনালের ম্যান অফ দ্য ম্যাচ: গ্রিজম্যান (ফ্রান্স);
♣এবারের আসরের প্রথম গোল: ইউরি গাজিনস্কি (রাশিয়া);
♣এবারের আসরে মোট হ্যাট্রিক: ২টি [১ম- ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো (স্পেনের বিপক্ষে), ২য়- হ্যারি কেইন (পানামার বিপক্ষে)];
♣প্রথমবারের মতো সংযোজন: V.A.R. (Video Assistant Referee);
♣বিশ্বকাপ মাসকট: জাবিভাকা (ZABIVAKA), অর্থ- জংলী নেকড়ে;
♣বিশ্বকাপ থিম সং: Live it up (শিল্পী- নিকি জেম);
♣এবারের আসর: ২১তম (আয়োজক- রাশিয়া);
♣মোট যতটি শহরে খেলা অনুষ্ঠিত হয়: ১১টি;
♣মোট ম্যাচের সংখ্যা: ৬৪টি;
♣মোট অংশগ্রহণকারী দেশ: ৩২টি (এদের মধ্যে মুসলিম দেশ ৭টি);
♣প্রথমবারের মতো অংশগ্রহণ: ২টি দেশ (পানামা ও আইসল্যান্ড);
♣দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলা একমাত্র এশিয় দেশ: জাপান;
♣বিশ্বকাপের বলের নাম: টেলস্টার ১৮ (প্রথম রাউন্ড পর্যন্ত) এবং টেলস্টার মেচতা (দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে ফাইনাল পর্যন্ত);
♥আগামী ২০২২ (২২তম) বিশ্বকাপ: আয়োজক দেশ- কাতার (মোট ৩২টি দেশ অংশ নেবে);
♥পরবর্তী ২০২৬ (২৩তম) বিশ্বকাপ: আয়োজক দেশ- মেক্সিকো, যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা (মোট ৪৮টি দেশ অংশ নেবে)
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশে সবমিলিয়ে ৫৭+৬ = ৬৩ টি ব্যাংক আছে। কোন ধরণের ব্যাংক কতটি চলুন জেনে নেই। বর্তমানে দেশে প্রধানত দুই ধরনের ব্যাংক রয়েছে।
1. তফসিলী ব্যাংক (৫৭)
2. অ-তফসিলী ব্যাংক (৬)
তফসিলী ব্যাংকঃ যে সকল ব্যাংক কেন্দ্রীয় ব্যাংকের শর্তসমূহ মেনে নিয়ে এর তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হয় তাকে তফসিলী ব্যাংক বলে । তফসিলী ব্যাংকগুলো ব্যাংক কোম্পানী অ্যাক্ট, ১৯৯১ (সংশোধিত ২০০৩) এর অধীনে কাজ করে। দেশে বর্তমানে ৫৭ টি তফসিলী ব্যাংক আছে। তফসিলী ব্যাংকগুলো নিম্নরুপ হয়ে থাকে।
1. বাণিজ্যিক ব্যাংক (৫৫)
2. বিশেষায়িত ব্যাংক (২)
বাণিজ্যক ব্যাংকঃ যে ব্যাংক জনগনের সঞ্চিত অর্থ আমানত হিসেবে রাখে এবং ব্যবসা-বাণিজ্যে ও শিল্প প্রতিষ্ঠানকে স্বল্প মেয়াদী ঋণ দেয় তাকে বাণিজ্যিক ব্যাংক বলে। এসব ব্যাংককে স্বল্প মেয়াদী ঋণের ব্যবসায়ীও বলা হয়। বাংলাদেশে দুই ধরনের বাণিজ্যিক ব্যাংক আছে।
1. রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক (৬)
2. ব্যক্তিমালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক (৪০)
3. বিদেশী বাণিজ্যিক ব্যাংক (৯)
রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংকঃ যে সকল বাণিজ্যিক ব্যাংক সরকারী উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত বা সরকার কর্তৃক জাতীয়করণকৃত তাকে রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক বলে। রাষ্ট্রায়ত্ত বাণিজ্যিক ব্যাংক ৬ টি।
১। সোনালী ব্যাংক লিমিটেড
২। অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড
৩। রূপালী ব্যাংক লিমিটেড
৪। জনতা ব্যাংক লিমিটেড
৫। বেসিক ব্যাংক লিমিটেড
৬। বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেড
ব্যক্তিমালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংকঃ যে সকল বাণিজ্যিক ব্যাংক জনগনের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত এবং জনগন কর্তৃক পরিচালিত হয় তাকে ব্যক্তিমালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক বলে। ব্যক্তিমালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক রয়েছে মোট ৪০ টি। এগুলোকে আবার দুই ভাগে করা যায় ।
১। প্রথাগত ব্যক্তিমালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক (৩২)
২। ইসলামী শরীয়াহ ভিত্তিক ব্যক্তিমালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংক (৮)
৩২ টি প্রথাগত ব্যক্তিমালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংকের তালিকা নিম্নরূপ।
১। ঢাকা ব্যাংক লিমিটেড
২। ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড
৩। পূবালী ব্যাংক লিমিটেড
৪। ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেড
৫। ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড
৬। এবি ব্যাংক লিমিটেড
৭। ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড
৮। উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড
৯। ট্রাস্ট ব্যাংক লিমিটেড
১০। মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক
১১। যমুনা ব্যাংক লিমিটেড
১২। প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেড
১৩। স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেড
১৪। ইস্টার্ণ ব্যাংক লিমিটেড
১৫। আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেড
১৬। দি সিটি ব্যাংক লিমিটেড
১৭। এনসিসি ব্যাংক লিমিটেড
১৮। মার্কেন্টাইল ব্যাংক লিমিটেড
১৯। প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড
২০। সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড
২১। ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড
২২। বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক লিমিটেড
২৩। ব্যাংক এশিয়া লিমিটেড
২৪। এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক লিমিটেড
২৫। এনআরবি ব্যাংক লিমিটেড
২৬। এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড
২৭। মেঘনা ব্যাংক লিমিটেড
২৮। ফার্মারস ব্যাংক লিমিটেড
২৯। মধুমতি ব্যাংক লিমিটেড
৩০। সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার এন্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেড
৩১। মিডল্যান্ড ব্যাংক লিমিটেড
৩২। সীমান্ত ব্যাংক লিমিটেড
৮ টি ইসলামী শরীয়াহ ভিত্তিক ব্যক্তিমালিকানাধীন বাণিজ্যিক ব্যাংকের তালিকা নিম্নরূপ।
১। ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড
২। আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড
৩। ফার্স্ট সিকিউরিটিজ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড
৪। আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক লিমিটেড
৫। শাহ্জালাল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড
৬। এক্সপোর্ট ইম্পোর্ট ব্যাংক অফ বাংলাদেশ লিমিটেড
৭। সোশ্যাইল ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড
৮। ইউনিয়ন ব্যাংক লিমিটেড
৯ টি বিদেশী বাণিজ্যিক ব্যাংকের তালিকা নিম্নরূপ।
১। স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক লিমিটেড
২। হংকং সাংহাই ব্যাংকিং কর্পোরেশন (এইচএসবিসি)
৩। সিটিব্যাংক এনএ (ন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন)
৪। কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন
৫। স্টেট ব্যাংক অব ইন্ডিয়া
৬। হাবিব ব্যাংক লিমিটেড
৭। ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান
৮। ওরি ব্যাংক
৯। ব্যাংক আলফালাহ্
বিশেষায়িত ব্যাংকঃ বিশেষ খাতের উন্নয়নের জন্য যে সব ব্যাংক প্রতিষ্ঠা লাভ করে তাকে বিশেষায়িত ব্যাংক বলে। রাষ্ট্রায়ত্ত বিশেষায়িত ব্যাংক ২ টি।
১। বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক (রাষ্ট্রায়ত্ত)
২। রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাষ্ট্রায়ত্ত)
অ-তফসিলী ব্যাংকঃ যে সকল ব্যাংক কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ম-নীতি মেনে চলার শর্তে এর তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হয় না তাকে অ-তফসিলী ব্যাংক বলে। দেশে ৬ টি অ-তফসিলী ব্যাংক রয়েছে।
1. আনসার ভিডিপি উন্ন্য়ন ব্যাংক (রাষ্ট্রায়ত্ত)
2. কর্মসংস্থান ব্যাংক (রাষ্ট্রায়ত্ত)
3. প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক (রাষ্ট্রায়ত্ত)
4. জূবিলী ব্যাংক
5. গ্রামীণ ব্যাংক (আধা-সরকারী)
6. পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক (রাষ্ট্রায়ত্ত)
মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক প্রামাণ্য চলচ্চিত্র
চলচ্চিত্রের নাম – পরিচালক
Stop Genocide জহির রায়হান
A State is Born জহির রায়হান
Liberation Fighters আলমগীর কবির
Innocent Fighters বাবুল চৌধুরী
মুক্তির গান তারেক মাসুদ ও ক্যাথরিন মাসুদ
মুক্তির কথা তারেক মাসুদ ও ক্যাথরিন মাসুদ
স্মৃতি’৭১ তানভির মোকাম্মেল ।

মুক্তিযুদ্ধোত্তর পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র
=================
চলচ্চিত্রের নাম – পরিচালক
ওরা ১১ জন (১৯৭২) -চাষী নজরুল ইসলাম
সংগ্রাম (১৯৭৪) -চাষী নজরুল ইসলাম
হাঙর নদী গ্রেনেড -চাষী নজরুল ইসলাম
আবার তোরা মানুষ হ (১৯৭৩) -খান আতাউর রহমান
এখনও অনেক রাত (১৯৯৭) -খান আতাউর রহমান
রক্তাক্ত বাঙ্গালি -মমতাজ বাঙ্গালি
ধীরে বহে মেঘনা -আলমগীর কবির
রূপালী সৈকত -আলমগীর কবির
কলমী লতা -শহীদুল হক খান
বাঘা বাঙ্গালি -আনন্দ
কার হাসি কে হাসে -আনন্দ
আগুনের পরশমনি -হুমায়ূন আহম্মেদ
ইতিহাস কন্যা -শামীম আখতার
আমার জন্মভূমি -আলমগীর কুমকুম
আলোর মিছিল -নারায়ণ ঘোষ মিতা
মেঘের অনেক রং -হারুনুর রশিদ
স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র
চলচ্চিত্রের নাম পরিচালক
একাত্তরের যীশু -নাসির উদ্দীন ইউসুফ
নদীর নাম মধুমতি -তানভীর মোকাম্মেল
হুলিয়া -তানভীর মোকাম্মেল
প্রত্যাবর্তন -মোস্তফা কামাল
পতাকা -এনায়েত করিম বাবুল
আগামী -মোরশেদুল ইসলাম
দুরন্ত -খান আখতার হোসেন
একজন মুক্তিযোদ্ধা -দিলদার হোসেন
ধূসর যাত্রা -আবু সায়ীদ
বখাটে -হাসিবুল ইসলাম হাবিব
শরৎ একাত্তর -মোরশেদুল ইসলাম
Length, Width & Duration
—————-
1. Length of Padma Bridge is — 6.15 km
2. Width of Padma Bridge is — 18.10 m.
3. Length of Jamuna Bridge is —- 4.8 km.
4. Width of Jamuna Bridge is — 18.50 m.
5. Length of Cox’s Bazar–Tekhnaf marine drive is— 80km (World’s longest)
6. Length of Proposed karnofuli tunnel— 3.4 km
7. Length of Dhaka Metro rail (MRT)—20.10km
8. Length of BRT (Bus Rapid Transit)— 20.5km
9. Duration of 7th Five year plan——2016-2020
10. Duration of Perspective Plan—–2010-2021(vision-2021)
11. Duration of SDG—-2016-2030

সাম্প্রতিক তথ্য
১/ ২০১৮-১৯ অর্থবছরের মোট বাজেট – ৪,৬৪,৫৭৩ কোটি টাকা।
২/বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি- ১,৭৩,০০০ কোটি টাকা
৩/ সর্বোচ্চ বরাদ্দ- জনপ্রশাসন-৮৩,৫০৯ কোটি টাকা
৪/ ADP বাস্তবায়ন – ৯৩.৭১%
৫/ বিশ্ব ব্যাংক কর্তৃক রোহিঙ্গাদের জন্য অনুদান – ৪৮ কোটি ডলার।
৬/ সংবিধানের ১৭ তম সংশোধনী হয়- ৮ জুলাই ২০১৮
৭/ সংশোধিত অনুচ্ছেদ – ৬৫(৩)
৮/১৭ তম সংশোধনী অনুসারে নারী আসন বহাল থাকবে- ২৫ বছর।
১১/ ২২ তম বিশ্বকাপ ফুটবল- কাতার (২০২২)
১০/ ২৩ তম বিশ্বকাপ ফুটবল অনুষ্ঠিত হবে- যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও মেক্সিকোতে ( NAFTA)-২০২৬ সাল।
১১/ ২৩ তম ফুটবল বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করবে -৪৮ টি দেশ।
১২/ বর্তমানে ২১ তম বিশ্বকাপের শততম গোলদাতা- লিওনেল মেসি
১৩/ অনুষ্ঠিতব্য ফাইনাল ম্যাচ-১৫ জুলাই, লুঝনিকি স্টেডিয়াম, রাশিয়া।
১৪/ রাশিয়া আসরের থিম সং- লিভ ইউ আপ এবং ফুটবলের নাম Telstar 18
১৫/ বর্তমান বাজেটে কৃষি, শিল্প ও সেবা খাতের অবদান যথাক্রমে ১৪.১০, ৩৩.৭১ ও ৫২.১৮ শতাংশ।
১৬/ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণে দেশ হিসেবে বাংলাদেশ- ৫৭ তম।
১৭/ প্রস্তুতকারক – থ্যালেস অ্যালেনিয়া স্পেস, ফ্রান্স।
১৮/ গ্রাউন্ড স্টেশন – গাজীপুর ও বেতবুনিয়া।
১৯/ ১১ তম ক্রিকেট বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে- ইংল্যান্ড
২০/ মার্সার তথ্য মতে বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর- হংকং।
২১/ ইকোনমিস্ট ইনটেলিজেন্স তথ্য অনুসারে সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর – সিঙ্গাপুর সিটি
২২/ বৈশ্বিক শান্তি সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান- ৯৩ তম (১ম- আইসল্যান্ড)
২৩/ ইউনেস্কো এর জরিপে sweetest language in the world হিসেবে নির্বাচিত- বাংলা
২৪/ ফোর্বসের মতে বিশ্বের ক্ষমতাধর ব্যক্তি- শি জিনপিং (চীন), ২য়-ভ্লাদিমির পুতিন, ৩য়- ট্রাম্প
২৫/ সিঙ্গাপুর ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের জরিপে বিশ্বের ২য় সেরা প্রধানমন্ত্রী- শেখ হাসিনা, ১ম – নরেন্দ্র মোদি (ভারত)
২৬/ সারা বিশ্বে বাল্যবিবাহের হারে বাংলাদেশের অবস্থান – ৪র্থ
২৭/ ফোর্বসের মতে বিশ্বের সেরা ধনী- জেফ বেজোস ( আমাজন প্রতিষ্ঠাতা)
২৮/ সুখী দেশের তালিকায় ১ম স্থানে রয়েছে- ফিনল্যান্ড। বাংলাদেশ-১১৫তম
২৯/ গণতান্ত্রিক দেশ হিসেবে বাংলাদেশ-৯২ তম, ১ম- নরওয়ে।
৩০/ গড় আয়ুতে শীর্ষ দেশ জাপান (৮৩.৭), সর্বনিম্ন দেশ- সিয়েরা লিওন।
৩১/ কানাডার পার্লামেন্টে ১ম বাংলাদেশী হিসেবে নির্বাচিত এমপি- ডলি বেগম (ডেমোক্রেটিক পার্টি)
৩২/ বর্তমানে চালু সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা- ৪১টি, সর্বশেষ- বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি।
৩৩/ “শেখ মুজিব আমার পিতা ” বইটির লেখক- শেখ হাসিনা।
৩৪/ বাংলাদেশের ১ম ওয়াইফাই নগরী- সিলেট।
৩৫/ ২০১৭ সালে সেরা বাঙালি নির্বাচিত হন- মাশরাফি বিন মুর্তজা।
৩৬/ ৭ম এশিয়া নারী বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন
-বাংলাদেশ। ম্যান অব দ্য ম্যাচ- রুমানা এবং ম্যান অব দ্য সিরিজ- হারমানপ্রীত কাউর (ভারত)
৩৭/ ৭ মার্চের ভাষণ (world documentary heritage) অনূদিত হয়- ১২ টি ভাষায়।
৩৮/ বিশ্বের ক্ষমতাধর ১০০ নারীর তালিকায় বর্তমানে শেখ হাসিনার অবস্থান- ৩০ তম, টাইম ম্যাগাজিন অনুসারে লিডার ক্যাটাগরিতে ২১ তম।
৩৯/ বর্তমানে বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি- জাবেদ পাটোয়ারী।
৪০/ ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশী বংশদ্ভুত- বিপ্লব দেব।
৪১/ ২০১৮ তে যে বিষয়ে নোবেল প্রদান করা হবে না- সাহিত্য।
৪২/ বাংলাদেশের জরুরি সেবায় ব্যবহৃত হেল্পলাইন-৯৯৯
৪৩/ বিশ্ব বিনিয়োগ প্রতিবেদন অনুসারে বাংলাদেশে বিনিয়োগে শীর্ষ দেশ- যুক্তরাজ্যে
৪৪/ ব্যালন ডি’অর ২০১৭ ও ফিফা বর্ষসেরা পুরস্কার ২০১৭ লাভ করেন – ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো
৪৫/ বাংলাদেশের ১২ তম নির্বাচন কমিশনার- নুরুল হুদা, ২১ তম রাষ্ট্রপতি- আব্দুল হামিদ, ২২ তম বিচারপতি- মাহমুদ হোসেন।
৪৬/ যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫ তম প্রেসিডেন্ট- ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং জাতিসংঘের ৯ম মহাসচিব- অ্যান্তোনিও গুতেরেস (পর্তুগাল)
৪৭/ বাংলাদেশের গড় আয়ু ৭১.৬ বছর এবং স্বাক্ষরতার হার ৭১%
৪৮/ ট্রাম্প ও উন বৈঠক- ১২ জুন, সান্তোসা দ্বীপ, সিঙ্গাপুর।
৪৯/ EPA প্রতিবেদন অনুসারে বিশ্বের শীর্ষ দূষিত বায়ুর দেশ – নেপাল।
৫০/ বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস – ১১ জুলাই
৫১/ WTA টেনিস টুর্নামেন্টে জয় লাভ করেন- ক্যারোলিন ওজনিয়াক
৫২/ মধ্যপ্রাচ্য গ্যাস রপ্তানিতে শীর্ষ দেশ – কাতার
৫৩/ সামরিক ব্যায়ে শীর্ষ দেশ- যুক্তরাষ্ট্র।
৫৪/ ১ম 4G সেবা চালু করে- দক্ষিণ কোরিয়া (২০০৬)
বাংলাদেশ-১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
৫৫/ যুক্তরাষ্ট্রের নতুন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী- মাইক পম্পেও।
৫৬/ ভ্লাদিমির পুতিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে এ পর্যন্ত নির্বাচিত হয়েছেন- ৪ বার।
৫৭/ ইউরোপে পোশাক রপ্তানিতে ২য় শীর্ষ- বাংলাদেশ
৫৮/ শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্ক- যশোর।
৫৯/ রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিতে ভেটো প্রদানকারী দেশ- চীন ও রাশিয়া।
৬০/ জাতীয় গণহত্যা দিবস – ২৫ মার্

 

প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগ প্রশ্ন অ্যানালাইসিসঃ

#বাংলাঃ(বেশি গুরুত্ব দিয়ে পড়বেন)

সন্ধি বিচ্ছেদ → ১-২ টি
কারক →১-৩ টি
লিঙ্গান্তর → ১ টি
প্রকৃতি ও প্রত্যয় → ১ টি
বিরাম চিহ্ন → ১ টি
সমাস → ১-২ টি
কবিতার চরণের লেখক → ১ টি
বাগধারা → ১-২ টি
বিপরীতার্থক শব্দ → ১-৩ টি
সমার্থক শব্দ → ১-৪ টি
ছদ্মনাম →১ টি
এক কথায় প্রকাশ → ১-২ টি
শুদ্ধ বানান → ১-২ টি
সাহিত্যকর্ম → ১-৩ টি

#কম গুরুত্ব দিয়ে পড়বেন:

পারিভাষিক শব্দ → ১ টি
স্বরভঙ্গি → ১ টি
বাচ্য → ১ টি
সাধু ও চলিত রুপ → ১ টি
সারাংশ → ১ টি
উপসর্গ → ১ টি
ধবনি ও শব্দ → ১ টি
পদ → ১ টি

#গণিতঃ(বেশি গুরুত্ব দিয়ে চর্চা করবেন)

ঐকিক নিয়ম → ১ টি
অনুপাত → ১ টি
শতকরা → ১-২ টি
সুদকষা → ১ টি
লাভ-ক্ষতি → ১ টি
ভগ্নাংশ → ১-২ টি
সরল সমীকরণ → ১-৩ টি
ত্রিভুজ → ১-৩ টি
বীজগণিতের সূত্রাবলি → ১-৩ টি
গড় → ১-২ টি… শিমুল
উৎপাদক → ১ টি
গ.সা.গু ও ল.সা.গু → ১-২ টি
পরিমিতি → ১ টি
কোণ → ১ টি
সময়,দূরত্ব → ১ টি

#কম গুরুত্ব দিয়ে চর্চা করবেন

পরিমাপ → ১ টি
বর্গ → ১ টি
চতুর্ভুজ → ১ টি
বারের নাম নির্ণয় → ১ টি
সেট → ১ টি
তথ্য উপাত্ত → ১ টি

#ইংরেজিঃ(বেশি গুরুত্ব দিবেন)

Tense → ১-২ টি
Parts of speech → ১-২ টি
Number → ১ টি
Article → ১ টি
Right from of verb → ১-৩ টি
Voice → ১ টি
Noun → ১ টি
Narration → ১ টি
Preposition → ১-২ টি
Spelling → ১ টি
Correction → ১-৩ টি
Synonym → ১-৩ টি
Antonym → ১-২ টি

#কম গুরুত্ব দিবেন

Degree → ১ টি
Idioms → ১-২ টি
Gender → ১ টি
Transformation → ১ টি
Gerund & Participation → ১ টি
Connectors → ১ টি
Literature → ১ টি
Proverb → ১ টি

#সাধারন_জ্ঞানঃ(বেশি গুরত্ব দিয়ে পড়বেন)

মুক্তিযুদ্ধ → ২-৩ টি
প্রাচীন জনপদ → ১ টি
বাংলাদেশের নদ-নদী → ১ টি
মানবদেহ → ১ টি
শব্দ → ১ টি
জাতিসংঘ ও অন্যান্য সংগঠন → ১-২ টি
প্রাচীন বাংলার ইতহাস → ১-৩ টি
আন্তর্জাতিক সমুদ্রসীমা → ১ ট

#কম গুরুত্ব দিবেন

পদার্থ → ১ টি
সাম্প্রতিক বাংলাদেশ → ১ টি
ছিটমহল → ১ টি
Abbrebeation → ১ টি
ইন্টারনেট ও সফটওয়্যার → ১ টি
বজ্রপাত → ১ টি
বাংলাদেশের প্রথম → ১ টি
গ্রহ ও উপগ্রহ → ১ টি
এসিড → ১ টি
কালচার বিদ্যা → ১ টি
রাজধানী নাম ও মুদ্রা → ১ টি
বাংলা একাডেমী → ১ টি
উদ্ভিদদেহ → ১ টি
প্রণালী → ১ টি
যুদ্ধ-বিগ্রহ → ১ টি
পুরস্কার → ১ টি
– মাষ্টার দা আনন্দ বর্মন
#শেয়ার দিয়ে সবাইকে জানার সুযোগ দিন।

Primary Assistant Teacher Admit Card Download 2019

The appointment of ‘Assistant Teacher’ will be organized on May 24th 2019 in the government primary school. The Ministry of Primary and Mass Education has already made preparations for the written examination of MCQ system. Besides this, oral exams will be completed in the next two months. Director General of Primary Education Abu Hena Mostafa Kamal confirmed this information to Jugantar.

বিশাল সুখবর পাচ্ছেন নিবন্ধনধারীরা

দেশের বেসরকারি স্কুল-কলেজে নতুন প্রায় এক লাখ শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগের অনুমোদন দিয়েছে সরকার। যা বিভিন্ন পর্যায়ে শিক্ষক নিবন্ধনধারীদের জন্য বড় সুখবর বলেই গণ্য হতে পারে। ২০১৮ সালের জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী সম্প্রতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ এ অনুমোদন দেয়। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো নির্ধারিত সময়ে শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ দিলে তাদের এমপিওভুক্তি সহজ হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জাবেদ আহমেদ একটি গণমাধ্যমকে বলেন, প্রায় এক লাখ পদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ দিতে পারবে। কোন বিষয়ের শিক্ষক বা কোন পদের জনবল কখন নিয়োগ দিতে হবে, তা নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। মানসম্মত শিক্ষার প্রয়োজনেই সৃষ্ট এসব পদে লোক নিয়োগের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালের নতুন জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী দেশের এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন তৈরি পদের অনুমোদন দেওয়া হয়। এসব পদের বিপরীতে নিম্ন মাধ্যমিক ও মাধ্যমিকে ৯১ হাজারের বেশি সহকারী শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। আরও প্রায় ৩ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগ দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে কলেজে। যেসব বিষয়ে পদ বেড়েছে সেসব বিষয়ের মধ্যে নিম্ন মাধ্যমিক ও মাধ্যমিকে রয়েছে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি, ভৌত বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা, ইংরেজি, বাংলা, চারু ও কারুকলার শিক্ষক। এছাড়া কম্পিউটার ল্যাব সহকারী, নৈশপ্রহরী ও পরিচ্ছন্নতাকর্মীর পদে জনবল নিয়োগের অনুমোদন দেওয়া হয়।

কলেজ পর্যায়ে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিষয়ের প্রভাষক, প্রদর্শকের চতুর্থ পদ, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর, ল্যাব সহকারী দ্বিতীয় পদ থেকে ল্যাব সহকারী চতুর্থ পদে এবং অফিস সহকারী দ্বিতীয় পদে জনবল নিয়োগের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, নিম্ন মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিষয়ের শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে এ বছরের মধ্যে। ভৌত বিজ্ঞানে ২০২০ সালের মধ্যে। ব্যবসায় শিক্ষা, ইংরেজি ও কম্পিউটার ল্যাব সহকারী পদে লোক নিয়োগ দিতে হবে ২০২০ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে। বাংলা বিষয়ের শিক্ষক ও নৈশপ্রহরী, পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিয়োগ দিতে হবে ২০২১ থেকে ২০২২ সালের মধ্যে। আর চারু ও কারুকলা বিষয়ের শিক্ষক নিয়োগ দিতে হবে ২০২২ সাল থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে।

কলেজ পর্যায়ে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিষয়ের শিক্ষক ও ল্যাব সহকারী নিয়োগ দিতে হবে ২০১৯ সালের মধ্যে। অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর, ল্যাব সহকারী দ্বিতীয় পদে লোক নিয়োগ দিতে হবে ২০১৯ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে। প্রভাষকের চতুর্থ পদে ২০২০ থেকে ২০২১ সাল, ল্যাব সহকারী তৃতীয় পদে ২০২১ থেকে ২০২২ সাল এবং ল্যাব সহকারী চতুর্থ পদে জনবল নিয়োগ করতে হবে ২০২২ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে।

নতুন তৈরি এসব পদে জরবল নিয়োগ করতে হবে ২০১৮ সালের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা মেনে।

জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপসচিব মো. কামরুল হাসান বলেন, ‘গত ৩০ মে এমপিও শাখা থেকে আদেশ জারি হয়েছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো নির্ধারিত সময়ে শিক্ষক-কর্মচারী নিয়োগ দিলে তারা যথানিয়মে এমপিওভুক্ত হতে পারবে।’

সরকারি প্রাথমিক আরো ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক চাকরির পরীক্ষার তারিখ প্রবেশপত্র। প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক চাকরির পরীক্ষার তারিখ। প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক চাকরি পরীক্ষার তারিখ প্রকাশিত। প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক এখন বাংলাদেশে একটি আকর্ষণীয় চাকরির বিজ্ঞপ্তি। প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকের স্মার্ট এবং বড় সেবা দলে যোগদান। প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক এখন খুব নির্ভরযোগ্য সরকার। বাংলাদেশে সেবা দল প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক কাজের বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কিত নোটিশ এবং সমস্ত তথ্য আমার ওয়েবসাইট নিচে পাওয়া যায়।

প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক চাকরির পরীক্ষার তারিখ। প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক চাকরি পরীক্ষার তারিখ প্রকাশিত। প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক এখন বাংলাদেশে একটি আকর্ষণীয় চাকরির বিজ্ঞপ্তি। প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকের স্মার্ট এবং বড় সেবা দলের সাথে যোগদান করুন এই মুহুর্তে প্রাথমিক চাকরি বাংলাদেশের সেরা চাকরি। এবং প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক বাংলাদেশের প্রত্যেকের জন্য খুব আকর্ষণীয় কাজ। প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক চাকরি সার্কুলার 2019

সরকারি প্রাথমিক আরো ১০ হাজার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি শিগগিরই জারি করা হতে পারে বলে জানা গেছে। সরকারি, আধাসরকারি ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের তিন লাখেরও বেশি শূন্যপদে দ্রুত নিয়োগের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। রোববার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সচিব সভায় এ নির্দেশ দেয়া হয়। বৈঠকের পর বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কয়েকজন সচিব সূত্রে এসব তথ্য জানান।

সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় ৪১তম বিশেষ বিসিএসের মাধ্যমে প্রত্যন্ত এলাকার কলেজগুলোরও শূন্যপদ পূরণ করা হবে। এ ছাড়া প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে প্রায় ২৫ হাজার। ইতিমধ্যে ১০ হাজার শূন্যপদের বিপরীতে নিয়োগের প্রক্রিয়া চলমান। বাকি ১০ হাজার শিক্ষক নিয়োগে শিগগিরই সার্কুলার দেয়া হবে।

এ ছাড়া পিয়ন ও দফতরি পদে প্রায় ৫ হাজার লোক নিয়োগ দেয়ার চিন্তাভাবনা রয়েছে। পাশাপাশি প্রতিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একজন করে হিসাবরক্ষক কর্মকর্তা নিয়োগের প্রতিশ্রুতি রয়েছে সরকারের।

গত বছরই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের সার্কুলার জারি করা হয়। পরীক্ষায় অংশ নিতে ১৩ হাজার পদের বিপরীতে আবেদন জমা পড়েছে ২৪ লাখের বেশি। এই নিয়োগ পরীক্ষা আগামী ২৪ মে শুরু হবে।

Dpe Assistant News

main Source: http://www.educationbangla.com/

***এডমিট কার্ড**
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার ২য় ধাপে পরীক্ষার এডমিট কার্ড প্রকাশঃ
৩১ মে ২০১৯ তারিখে, ২য় ধাপে অনুষ্ঠিত প্রাইমারী নিয়োগ পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুনঃ

  1. 1st Phase Exam Date 24th May 2019
  2. 2nd Phase Exam Date 31st May 2019
  3. 3rd Phase Exam Date 21st June 2019
  4. 4th Phase MCQ Exam Date: 28th June 2019
  5. প্রতি ধাপের পরীক্ষার ৫ দিন আগে অনলাইনে প্রবেশপত্র পাওয়া যাবে।
  6. DPE Official Notice Link: Official Notice
  7. Download Admit Card

Primary School Teacher Exam Admit Card 2019

  1. Download Admit Card
  2. Admit Card Will be downloaded also from www.dpe.gov.bd.
  3. 1st Phase Exam of Teacher Recruitment 2018′ in the revenue department of Government Primary School will be held on 10th May 2019 for 1st Phase in 16th Districts together.

Primary School Teacher Exam Marks Distribution:

  • Total Marks: 100
  • Exam Type: MCQ + Viva
  • MCQ Exam marks: 80  and Viva Marks: 20

MCQ Exam Marks Distribution:

  • 1. Bangla-20
  • 2. English-20
  • 3. Math-20
  • 4. General Knowledge (GK)-20
  • Marks: 80, No. of Question: 80 ( Every question is equal 1 mark)
  • Negative Mark: .25 for each wrong answer.
  • N.B: 1 Mark for one question and .25 Negative marking for each wrong answer.

 

Important Info:

  • First Step: 24 May 2019
  • Second Step: 31 May 2019
  • Third Step: 21 June 2019
  • Fourth Step: 28 June 2019
  • Exam Type: Written Exam
  • Post Name: Assistant Teacher
  • Exam Time: 10:30 AM
  • Total Vacancy: 12,000 Post
  • total application: 2500005 (5 Lac) and 5,200 Application will complete for one post.

 

  • http://archive.dpe.teletalk.com.bd/dpe_rev/admitcard/

Primary Assistant Teacher Admit Card Download Link

Primary Assistant Teacher Job Exam Notice

Primary Assistant Teacher Job Exam Notice

Primary Assistant Teacher Job Exam Notice

Primary Assistant Teacher Job Exam Notice

Primary Assistant Teacher Job Exam Notice

রাজস্বখাতভূক্ত “সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮” এর লিখিত পরীক্ষা গ্রহণ সংক্রান্ত।

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২৪ মে শুরু ???????????

পরীক্ষাঃ ২৪ ও ৩১ মে এবং ১৪ ও ২১ জুন ২০১৯

দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা চার ধাপে শুরু হবে আগামী ২৪ মে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানিয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাজস্ব খাতভুক্ত সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ এর লিখিত পরীক্ষা চার ধাপে পর্যায়ক্রম ২৪ মে, ৩১ মে, ১৪ জুন ও ২১ জুন (শুক্রবার) সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম নিতে বলা হয়েছে।
এর আগে ১৭ মে থেকে চার দফায় পরীক্ষা আয়োজনের কথা জানানো হয়েছিল। ওই দিন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা থাকায় এই পরীক্ষা পেছানো হয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে

Source: https://www.prothomalo.com/chakri-bakri/article/1593053/

প্রথম ধাপের পরীক্ষা- ২৪ মে অনুষ্ঠিত হবে
যেসব জেলায় পরীক্ষা হবে

ভোলা, পবনা, জয়পুরহাট ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও মানিকগঞ্জ জেলার সব উপজেলায় একযোগে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়া ও সদর উপজেলা;
শরীয়তপুরের গোসাইরহাট, নড়িয়া ও ভেদরগঞ্জ উপজেলা;
মাদারীপুরের সদর ও রাজৈর উপজেলা;
ফরিদপুরের চরভদ্রাসন, আলফাডাঙ্গা, সদরপুর, সালথা ও সদর উপজেলা;
নরংসিংদীর মনোহরদী, রায়পুরা ও বেলাবো উপজেলা;
কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর, অষ্টগ্রাম, করিমগঞ্জ, কাটিয়াদি, পাকুন্দিয়া ও তারাইল উপজেলা;
জামালপুরের মেলান্দহ, বকশিগঞ্জ ও সদর উপজেলা;
টাঙ্গাইলের মির্জাপুর, কালিহাতী, মধুপুর, নাগরপুর, ভুয়াপুর ও ধনবাড়ী উপজেলা;
লক্ষ্মীপুরের কমলনগর ও সদর উপজেলা।
কক্সবাজারের উখিয়া, কুতুবদিয়া, পেকুয়া, টেকনাফ ও সদর উপজেলা;
চাঁদপুরের শাহরাস্তি, ফরিদগঞ্জ, মতলব উত্তর, মতলব দক্ষিণ উপজেলা;
হবিগঞ্জের বাহুবল, নবীগঞ্জ, লাখাই ও সদর উপজেলা;
সুনামগঞ্জের দেলদুয়ারবাজার, বিশ্বম্বরপুর, ছাত্ক, সাল্লা ও সদর উপজেলা;
সিলেটের কানাইঘাট, বালাগঞ্জ, বিশ্বনাথ, ফেন্সুগঞ্জ, জৈন্তাপুর ও সদর উপজেলা;
পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া, নেছারাবাদ ও সদর উপজেলা;
পটুয়াখালীর দুমকী, গলাচিপা ও সদর উপজেলা;
সাতক্ষীরার আশাশুনি, শ্যামনগর ও সদর উপজেলা;
নীলফামারীর ডোমার, সৈয়দপুর ও সদর উপজেলা;
নাটোরের গুরুদাসপুর, সিংড়া ও সদর উপজেলা এবং
মৌলভীবাজারের রাজনগর, কমলগঞ্জ, শ্রীমঙ্গল ও জুড়ি উপজেল

দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা- ৩১ মে অনুষ্ঠিত হবে
যেসব জেলায় পরীক্ষা হবে
মুন্সীগঞ্জ, লালমনিরহাট, ঠাকুরগাঁও, নারায়ণগঞ্জ, শেরপুর ও রাজবাড়ী জেলার সব উপজেলার পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি, টুঙ্গীপাড়া ও মকসুদপুর উপজেলা;
শরীয়তপুরের জাজিরা, ডামুড্যা ও সদর উপজেলা;
মাদারীপুরের কালকিনি ও শিবচর উপজেলা;
ফরিদপুরের নগরকান্দা, বোয়ালমারী, ভাঙ্গা ও মধুখালী উপজেলা;
নরসিংদীর পলাশ, শিবপুর ও সদর উপজেলা;
জামালপুরের সরিষাবাড়ী, দেওয়ানগঞ্জ, ইসলামপুর ও মাদারগঞ্জ উপজেলা;
টাঙ্গাইলের ঘাটাইল, সখিপুর, গোপালপুর, বাসাইল, দেলদুয়ার ও সদর উপজেলা;
কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর, নিকলী, কুলিয়ারচর, ইটনা, ভৈরব, মিঠামইন ও সদর উপজেলা।
লক্ষ্মীপুরের রায়পুর, রামগঞ্জ ও রামগতি উপজেলা;
কক্সবাজারের চকোরিয়া, মহেশখালী ও রামু উপজেলা;
চাঁদপুরের কচুয়া, হাজীগঞ্জ, হাইমচর ও সদর উপজেলা;
হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং, আজমিরিগঞ্জ, মাধবপুর, চুনারুঘাট উপজেলা;
সুনামগঞ্জের তাহিরপুর, জামালগঞ্জ, ধর্মপাশা, দিরাই, জগন্নাথপুর ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা;
সিলেটের গোয়াইনঘাট, গোলাপগঞ্জ, কোম্পানীগঞ্জ, জকিগঞ্জ, বিয়ানীবাজার, দক্ষিণ সুরামা উপজেলা;
পিরোজপুর জেলার কাউখালী, নাজিরপুর, মঠবাড়িয়া ও ইন্দুরকানি উপজেলা;
পটুয়াখালীর দশমিনা, বাউফল, মির্জাগঞ্জ, কলাপড়া ও রাঙ্গাবালী উপজেলা;
সাতক্ষীরার দেবহাটা, কলারোয়া, কালিগঞ্জ ও তালা উপজেলা;
নাটোরের নলডাঙ্গা, লালপুর, বড়াইগ্রাম ও বাগাতিপাড়া উপজেলা;
নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ, জলঢাকা, ডিমলা উপজেলা এবং
মৌলভীবাজারের বড়লেখা, কুলাউড়া ও সদর উপজেলা

তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা – ১৪ জুন অনুষ্ঠিত হবে
যেসব জেলায় পরীক্ষা হবে
ফেনী, ঝালকাঠি, বরগুনা, মাগুরা, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও পঞ্চগড় জেলার সব উপজেলায় একযোগে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
নেত্রকোনার দুর্গাপুর, পূর্বধলা, বারহাট্টা, খালিয়াজুড়ি, মদন ও মোহনগঞ্জ উপজেলা;
ময়মনসিংহের গফরগাঁও, ঈশ্বরগঞ্জ, ফুলবাড়িয়া, গৌরীপুর, ফুলপুর, ধোবাউড়া ও তারাকান্দা উপজেলা;
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর, বাঞ্ছারামপুর, আখাউড়া ও সদর উপজেলা;
কুমিল্লার লাকসাম, দেবীদ্বার, মুরাদনগর, দাউদকান্দি, চৌদ্দগ্রাম, হোমনা ও সদর উপজেলা;
চট্টগ্রামের ডবলমুরিং, পাহাড়তলী, বন্দর, পাঁচশাইল, চান্দগাঁও, কোতোয়ালি, বাঁশখালী, রাউজান, সন্দ্বীপ, ফটিকছড়ি, আনোয়ারা, লোহাগড়া উপজেলা;
নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ, কবিরহাট, সুবর্ণচর ও সদর উপজেলা;
বরিশালের আগৈলঝাড়া, বাকেরগঞ্জ, গৌরনদী ও সদর উপজেলা;
যশোরের ঝিকরগাছা, বাঘারপাড়া, মনিরামপুর ও শার্শা উপজেলা;
খুলনার কয়রা, ডুমুরিয়া ও সদর উপজেলা;
বাগেরহাটের মোল্লাহাট, মোংলা, মোরেলগঞ্জ, কচুয়া, শরণখোলা উপজেলা;
ঝিনাইদহের মহেশপুর, শৈলকুপা ও হরিণাকুণ্ডু উপজেলা;
কুষ্টিয়ার মিরপুর, খোকসা ও সদর উপজেলা; কুড়িগ্রামের উলিপুর, চিলমারী, ফুলবাড়ী, রাজীবপুর ও সদর উপজেলা;
গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ, পলাশবাড়ী ও সদর উপজেলা;
রংপুরের কাউনিয়া, গঙ্গাচড়া, বদরগঞ্জ ও সদর উপজেলা;
দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট, খানসামা, চিরিরবন্দর, হাকিমপুর, বীরগঞ্জ ও সদর উপজেলা;
নওগাঁর বদলগাছি, মহাদেবপুর, মান্দা, রানীনগর ও সাপাহার উপজেলা;
বগুড়ার আদমদীঘি, শিবগঞ্জ, শেরপুর, সোনাতলা, ধুনট ও শাহাজাহানপুর উপজেলা;
রাজশাহীর গোদাগাড়ী, চারঘাট, বাগমারা ও সদর উপজেলা এবং
সিরাজগঞ্জের কাজিপুর, চৌহালী, রায়গঞ্জ, বেলকুচি ও সদর উপজেলা

Click For Read : প্রাথমিকে নিয়োগ: শর্ট সাজেশন Primary School Teacher Short Suggestion

চতুর্থ ধাপের পরীক্ষা-২১ জুন অনুষ্ঠিত হবে
যেসব জেলায় পরীক্ষা হবে
ঢাকা, গাজীপুর ও নড়াইল জেলার সব উপজেলায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
নেত্রকোনার আটপাড়া, কমলাকান্দা, কেন্দুয়া ও সদর উপজেলা;
ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা, ত্রিশাল, ভালুকা, নান্দাইল ও সদর উপজেলা;
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা, সরাইল, নাসিরনগর, আশুগঞ্জ ও বিজয়নগর উপজেলা;
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া, বরুড়া, বুড়িচং, চান্দিনা, সদর দক্ষিণ, নাঙ্গলকোট, মেঘনা, মনোহরগঞ্জ, তিতাস ও লালমাই উপজেলা;
চট্টগ্রামের পটিয়া, বোয়ালখালী, চন্দনাইশ, হাটহাজারী, রাঙ্গুনিয়া, মিরেরসরাই, সীতাকুণ্ডু ও সাতকানিয়া উপজেলা;
নোয়াখালীর চাটখিল, কোম্পানীগঞ্জ, হাতিয়া, সোনাইমুড়ী ও সেনবাগ উপজেলা;
বরিশালের উজিরপুর, বানারীপাড়া, বাবুগঞ্জ, মুলাদী, মেহেন্দীগঞ্জ ও হিজল উপজেলা;
কুষ্টিয়ার দৌলতপুর, ভোড়ামারা ও কুমারখালী উপজেলা;
যশোরের অভয়নগর, কেশবপুর, চৌগাছা ও সদর উপজেলা।
খুলনার তেরখাদা, দাকোপ, দিঘলিয়া, পাইকগাছা, ফুলতলা, বটিয়াঘাটা ও রূপসা উপজেলা;
বাগেরহাটের চিতলমারী, রামপাল, ফকিরহাট ও সদর উপজেলা;
ঝিনাইদহের কালিগঞ্জ, কোটচাঁদপুর ও সদর উপজেলা;
কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী, ভুরুঙ্গামারী, রাজারহাট ও রৌমারী উপজেলা;
গাইবান্ধার ফুলছড়ি, সাদুল্লাপুর, সাঘাটা ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলা;
রংপুরের তারাগঞ্জ, পীরগঞ্জ, পীরগাছা ও মিঠাপুকুর উপজেলা;
দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ, পার্বতীপুর, ফুলবাড়ী, বিরল, বিরামপুর, বোচাগঞ্জ ও কাহারোল উপজেলা;
নওগাঁর আত্রাই, ধামুরহাট, নিয়ামতপুর, পত্নীতলা, পোরশা ও সদর উপজেলা;
বগুড়ার কাহালু, গাবতলী, দুপচাঁচিয়া, নন্দীগ্রাম, সারিয়াকান্দি ও সদর উপজেলা;
রাজশাহীর তানোর, দুর্গাপুর, পুঠিয়া, পবা, বাঘা ও মোহনপুর উপজেলা এবং
সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া, তাড়াশ, কামারখন্দ, শাহাজাদপুর উপজেলা।

বিভিন্ন পত্রিকা মারফত জানা গেলো ‘প্রাইমারি নিয়োগ পরীক্ষা-২০১৮’ এর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে ২৪ মে, ২০১৯। সেই হিসেবে আর বেশি দিন নেই হাতে। মাত্র ১৫দিনের মতো সময় আছে যেসব উপজেলায় ২৪ মে পরীক্ষা। তবে অন্য তারিখে যাদের পরীক্ষা হবে তারা আরেকটু বেশি সময় পাবেন। জীবনের সবচেয়ে মূল্যবান সময়টুকুর সঠিক ব্যবহারে আপনি পৌঁছে যেতে পারেন অভিষ্ট লক্ষ্যে। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে কীভাবে প্রস্তুত করবেন আপনাকে তার একটি শর্ট সাজেশন্স দিচ্ছেন— গাজী মিজানুর রহমান। তিনি ৩৫তম বিসিএস (সাধারণ শিক্ষা) ক্যাডার এবং সাবেক সহকারী শিক্ষক, সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় (৩৪তম বিসিএস নন-ক্যাডার)।

প্রাথমিকে নিয়োগ: Primary Exam Short Suggestion 2019

পরীক্ষার তারিখ পরে যাওয়ায় অনেকেই চিন্তিত এই ভেবে যে,  ‘এতো দিন তেমন কিছু পড়লাম না, এখন কীভাবে কী করব? আমি কীভাবে এতো অল্প ভালো প্রস্তুতি নিবো? কীভাবে পরীক্ষায় পাশ করতে পারব? আমি কি আসলে পরীক্ষায় পাশ করতে পারবো?’ ইত্যাদি ইত্যাদি।

এখানে বলে রাখি, এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে প্রাইমারি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মধ্যে আমার জানমতে সর্বোচ্চ। কেননা এই সার্কুলারে ১৩ হাজার ১০০ সহকারী শিক্ষক নিয়োগ দিবে (আগে বলা হয়েছিল ১২ হাজার নিবে। ফাইনালি আরো ১ হাজার ১০০ বেড়েছে)! যদিও আবেদন করেছে ২৪ লাখ। সেটা ভেবে মন খারাপ করার বা ভয়ের কিছু নেই।

অনেকে আছে শুধু পরীক্ষার দেয়ার জন্য পরীক্ষা দিবে। তাই আপনি ভাবুন ১৩ হাজার নয় ১৩ জন নিলেও আমি সেই লিস্টে থাকবো ইনশাল্লাহ। তাহলে আপনার সেই মনোবল আপনাকে অনেকদূর নিয়ে যাবে।

এবার আসি এই ১৫ দিন কী কী পড়বেন। আমি মনে করি, যেহেতু সময় একদম কম তাই সব না পড়ে কেবল গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো পড়ুন। যেখান থেকে বেশি বেশি কিংবা বারবার প্রশ্ন আসে। এখন প্রশ্ন হলো আমি তা কীভাবে বোঝবো? উত্তর একদম সহজ— আপনি যদি প্রাইমারি সহকারী নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নগুলো ভালোভাবে খেয়াল করেন। তাহলে দেখতে পাবেন কোন টপিক থেকে বেশি প্রশ্ন এসেছে। (আপনার হাতে এতো সময় না থাকলে শুধু ‘প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ অ্যানালাইসিস’ বইটির সাজেশন ফলো করলেই হবে)

যেমন বাংলা ব্যাকরণ থেকে প্রশ্ন থাকে ১৭ থেকে ১৮ এর মতো ২০ টির মতো। বাকি ২তিনটি আসে সাহিত্য থেকে। তাই এখন বাংলা সাহিত্য না পড়ে কেবল ব্যাকরণ পড়ুন। সাহিত্য যা যা পড়েছেন। এখন আর পড়ার দরকার নেই। একান্তভাবে পড়তে চাইলে শুধু রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, বঙ্গিম, শরৎচন্দ্র, জহির রায়হান, মানিক বন্দ্যোপাধ্যায় ও জসীমউদদীন পড়ুন।

ব্যাকরণে প্রথমে কারক-বিভক্তি ভালো করে পড়ুন, এখান থেকে ২ থেকে ৪ টি প্রশ্ন থাকে, তারপর এক কথায় প্রকাশ, সমাস এই টপিকগুলো ভালো করে পড়ুন। সাথে বাগধারা, সন্ধি, সমার্থক ও বিপরীত শব্দ।

ইংলিশে গ্রামার থেকে প্রশ্ন থাকে ১৯-২০। মানে ইংলিশ লিটারেচার থেকে মাঝে মধ্য একটি প্রশ্ন থাকে। তবে ইংলিশ লিটারেচার থেকে ১টি প্রশ্নও না আসার সম্ভাবনা ৬০ শতাংশ। তাই লিটারেচার বাদ দিন। একান্ত পড়তে হলে শুধু Shakespeare, John Milton পড়ুন কিছু।

English Grammar এ আগে Vocabulary না পড়ে থাকে নতুন করে না পড়াই উচিত। English Grammar এ বেশি জোর দিন Parts of Speech, Tense। এই ২ টপিক থেকে ৪-৫টা প্রশ্ন থাকতে পারে। তারপর Preparation, Correct Spelling, Right form o Verbs, Subject Verb Agreement. সাথে পড়ে ফেলুন Condition Voice Change ও Narration, Phrase & Idioms. আর সব বাদ দিন এখন।

উল্লেখ্য যে, English এর টপিকগুলো একদম Basic থেকে “প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ Analysis” বইয়ে দেয়া আছে। আপনি বইটি থেকে পড়লে কারো হেল্প ছাড়াই সহজেই বুঝতে পারবেন।

গণিতের জন্য বীজ গণিতের মান নির্ণয়, শতকরা, লাভ-ক্ষতি, সুদ-আসল, গড়, সংখ্যা, উৎপাদক, অনুপাত ও ভগ্নাংশ পড়ুন। সাথে লসাগু ও গসাগু, ঐকিক নিয়ম । বাকি সব বাদ দিন এখন।

এখানে বলে রাখি শতকরা, গড় ও বীজগণিতের মান নির্ণয় থেকে প্রশ্ন বেশি থাকে।

জ্যামিতির অংশ থেকে কেবল বিভিন্ন প্রকার কোণ, সমকোণী ত্রিভুজ, বর্গক্ষেত্র ও আয়তক্ষেত্র পড়ুন বাকি সব বাদ দিন।

সাধারণ জ্ঞান: সাধারণ জ্ঞানের জন্য বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, ৬-দফা, মুজিবনগর সরকার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মোঘল আমল, ইংরেজ আমল ও প্রাচীন যুগ ভালো করে পড়ুন। সাথে অর্থনৈতিক সমীক্ষা ভালো করে পড়ুন। বীরশ্রেষ্ঠগুলো ভালো করে পড়ুন। (তাঁদের জেলা, জন্ম সাল এসব পড়ে মাথা নষ্ট করবেন না কিন্তু! এইসব সংক্ষিপ্ত আকারে গুছিয়ে দেয়া আছে “প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ Analysis” বইয়ে) এই মুহূর্তে বিজ্ঞান, ICT নতুন করে আর কিছু পড়বেন না। আন্তর্জাতিক থেকে তেমন প্রশ্ন থাকে না। ২-১ টা যা থাকে কেবল জাতিসংঘ ও বিভিন্ন সংস্থার সদরদপ্তর কোথায়, এই জাতীয় প্রশ্ন থাকে। তাই বাকি সব বাদ দিন।

আর সাম্প্রতিক থেকে ২-৩টা প্রশ্ন থাকে। তাই সব না পড়ে কেবল আলোচিত ঘটনাগুলো পড়ুন। বাকিসব বাদ দিন। সময় না পেলে সাম্প্রতিক না পড়াই উচিত। পড়লেও কেবল পরীক্ষার ১-২ দিন আগে পড়বেন। এখন পড়লে আবার ভুলে যেতে পারেন।

বিসিএস প্রিলির প্রশ্নগুলো সমাধান করুন। বিশেষ করে ৩৫তম-৪০তম। অবশ্যই সুশাসন, ভূগোল, ইংলিশ লিটারেচার, বাংলা লিটারেচার, বিজ্ঞান ও আইসিটি বাদ দিয়ে। তাহলে দ্রুত শেষ করতে পারবেন। হাতে সময় না থাকলে এইসবের ব্যাখ্যা না পড়ে শুধু উত্তরগুলো পড়লেই হবে।

*আর এই মুহূর্তে প্রাইমারি নিয়োগ পরীক্ষার বিগত সালের প্রশ্ন পড়ার দরকার নেই। এখান থেকে প্রশ্ন আসে না বললেই চলে। তবে বিসিএস প্রিলির বিগত সালের প্রশ্ন থেকে হুবহু কমন আসে অনেক প্রশ্ন; আমরা সেটা বিগত সালের প্রশ্ন বিশ্লেষণ করে দেখেছি।

*এর পর আপনি পরীক্ষা হলে পরীক্ষার দেয়ার আগে নিজে নিজে বাসায় বসে ঘড়ির সময় মডেল টেস্ট থেকে পরীক্ষা দিয়ে দেখুন, আপনি কত পান। মডেল টেস্ট বইটি বিষয়ভিত্তিক হলে ভালো। মানে – বাংলা-২০, ইংরেজি -২০, সাধারণ-২০, গণিত-২০ এভাবে আলাদা করে দেয়া থাকলে (আমরা “Authentic Publication” থেকে প্রকাশ করতে যাচ্ছি এমন বিষয়ভিত্তিক আলাদাভাবে করে দেয়া মডেল টেস্ট। মডেল টেস্ট বইটি কেবল পরীক্ষায় আসার মতো ৫০টি পূর্ণাঙ্গ মডেল টেস্ট সন্নিবেশ করা হয়েছে।) আপনি সহজে বোঝতে পারবেন, আপনি কোন বিষয়ে বেশি আর কোন বিষয়ে কম নান্বার পাচ্ছেন। যেভাবে কম নাম্বার পাবেন। পরীক্ষার আগে সেই বিষয়টি ভালোভাবে ঝালিয়ে নিয়ে পারলে আশা করি ভালো করতে পারবেন।

যদি মডেল টেস্টে ৫০-৬০ নাম্বার পান তাহলে আপনার প্রস্তুতি ধরে নিবেন ভালো। আর যদি ৬০-৭০ বা তারও বেশি পান, তাহলে ধরে নিবেন আপনার প্রস্তুতি অনেক ভালো। উল্লেখ্য যে, পরীক্ষার্থী যেহেতু ২৪ লাখ। তাই একসাথে সব জেলায় পরীক্ষা হবে না। পরীক্ষা হবে শুধু এমসিকিউ এবং ভাইভা। রিটেন হবে না।

মনে রাখবেন, এই ১৫ দিন ভালোভাবে কাজে লাগাতে পারলে আপনার ও আপনার পরিবারের ভাগ্যে অনেক পরিবর্ত্ন আসতে পারে। তাই সময় নষ্ট না করে বেশি বেশি পড়ুন শুধু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো বারবার; যেন পরীক্ষার হলে গেলে কনফিউস না হন।

আরেকটি কথা মনে রাখবেন, এই পৃথিবীতে কেউ কাউকে সুযোগ করে দেয় না, নিজের সুযোগ নিজেকে তৈরি করে নিতে হয় যোগ্যতা ও পরিশ্রম দিয়ে। আপনি ১ ঘণ্টা বেশি পড়া মানে ১ ঘণ্টার পথ এগিয়ে গেলেন সাফল্যের পথে।

*সকল পরিশ্রমী, সৎ সাহসীর জন্য শুভ কামনা ও দোয়া রইল।

Suggestion by : গাজী মিজানুর রহমান (৩৪তম বিসিএস নন-ক্যাডার)।

===প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা ২৪ মে শুরু

দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা চার ধাপে শুরু হবে আগামী ২৪ মে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানিয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাজস্ব খাতভুক্ত সহকারী শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ এর লিখিত পরীক্ষা চার ধাপে পর্যায়ক্রম ২৪ মে, ৩১ মে, ১৪ জুন ও ২১ জুন (শুক্রবার) সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় প্রস্তুতিমূলক কার্যক্রম নিতে বলা হয়েছে।
এর আগে ১৭ মে থেকে চার দফায় পরীক্ষা আয়োজনের কথা জানানো হয়েছিল। ওই দিন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা থাকায় এই পরীক্ষা পেছানো হয়েছে বলে সূত্র জানিয়েছে।
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর জানায়, গত বছরের ১ আগস্ট থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত অনলাইনে ২৪ লাখের বেশি আবেদন জমা পড়েছে। ১৩ হাজার পদের বিপরীতে এসব আবেদন জমা পড়ে। নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন করা হবে ডিজিটাল পদ্ধতিতে। এতে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হবে।

*তথ্যসূত্র : দৈনিক যুগান্তর

Primary Exam Date 2019

Exam Type: MCQ Exam
Post Name: Assistant Teacher
1st Phase MCQ Exam Date: 24th May 2019 ।
Vacancy was: 1200 (more or less)
Total Applicant: 2500005 ( 5 Lac And 5), 200 applicant will compete for one post.
Negative Marking: YES (.25 for every wrong answer)

Primary Assistant Teacher Job Apply Process 2018

  1. Must be Qualified all Candidate -Education Qualification, Age, National ID card or Birth Certificate All Requirement.
  2. Go to online Application website (http://dpe.teletalk.com.bd/).
  3. Application Form (Click here to apply Online)
  4. Click here to Select your post name.
  5. Fill-up Your Full Application form. Then Update your Photo Scan Copy(Photo size must be 300 by 300 Pixel, JPG Format, Photo Size- 100 KB) and Signature Scan Copy (Signature photo size must be 300 by 80 pixel, Photo size-60 KB).
  6. Re-Check your full Application form.
  7. Then submit your application.If You Complete Online Application and Submit Properly, You Will Get Application ID / User ID. Now Print Your Application Copy and Pay Fee.

After Submit your dpe online application you must be pay for DPE application fee. For complete your payment follow this SMS format below.

How to Mobile SMS For DPE Application

(i) SMS: DPE< Space>User ID send to 16222
Reply Applicant’s Name, Tk. 50- will be charged as application fee. Your PIN is (8 digit number)12345678.
To Pay Fee: Type DPE< Space>Yes< Space>PIN and send to 16222.

(ii) SMS: DPE< Space> Yes < Space>PIN – send 16222 Number

Example : DPE YES 12345678

Reply: Congratulations Applicant’s Name, payment completed successfully for DPE Application for xxxxxxxxxxxxxx User ID is (ABCDEF) an,d Password (xxxxxxxx)

If you Directorate of Primary Education ( DPE ) Job Password Deleted or Lost:

(i) DPE Help User ID and send to 16222
Example: DPE HELP USER ABCDEF).

(ii) DPE Help PIN No and send to 16222

Example: DPE HELP PIN (12345678).

Directorate of Primary Education is government educational board that managed Primary Education system around the Bangladesh. There are lots of School Managed by www.dpe.gov.bd. People are searching for Job information about DPE on Google. I Know you also want to get a job at Directorate of Primary. We published All updates and Circular Notice to this link.

DPE Admit Card Download – www.dpe.teletalk.com.bd

Many People Search www.dpe.teletalk.com.bd application form , admit card download in google. Now DPE official website address available here.Application process for Directorate of Primary Education in 2019 shown below this web address. DPE Teletalk official website for apply Directorate of Primary Education in January 2019. DPE Exam Date changed. Exam date of DPE by www dpe gov bd official website given below. Today Exam Date of Primary Account Assistant published .
Click below this image for download Revised results of DPE. MCQ Result of DPE are revised by dpe authority.

Visit : http://dpe.teletalk.com.bd

Primary Assistant Teacher Exam Date has been changed. Check New Exam Date for DPE 2019.After Download You DPE Admit Card from online keep reading this information. You can Get your exam center information by Teletalk mobile SMS . Here You can Download DPE Seat Plan Full as a PDF file.

  Admit Download

Primary Assistant Teacher exam Result – www.dpe.gov.bd

Directorate of Primary Education Job Circular result Date 2018. WWW DPE Result 2018 for the Primary Teacher job will be published soon. MCQ Test Result and written Exam Result of Directorate of Primary Education update by alljobscircularbd.com .
Check How to Apply : DPE Job Circular

Primary School Teacher Exam Syllabus:

1. Bangla
2. English
3. Math
4. General Knowledge (GK)

Primary School Teacher Exam Marks Distribution:

Total Marks: 100
Exam Type: MCQ + Viva
MCQ Exam marks: 80  and Viva Marks: 20

MCQ Exam Marks Distribution:

1. Bangla-20
2. English-20
3. Math-20
4. General Knowledge (GK)-20
Marks: 80
No. of Question: 80 ( Every question is equal 1 mark)
Negative Mark: .25 for each wrong answer.

N.B: 1 Mark for one question and .25 Negative marking for each wrong answer.

Primary Assistant Teacher Admit Card Download Link

Download Full Result Here

At this moment the Primary job is that the best job in the Asian nation and therefore the Primary Assistant Teacher Job Exam Notice could be a terribly enticing job for each individual in the Asian nation. An official of the ministry told Bangla news that after the recruitment of teachers ‘pool’ and ‘panel’ teachers, new initiatives taken to resolve the complexity. That’s why the Ministry wanted the budget for the primary education department.

Primary Assistant Teacher Job Exam Notice More Information

visiting Official website : www.dpe.gov.bd

Primary School Teacher examination Preparation 2019. DPE gov baccalaureate has printed elementary school Teacher Circular 2019, transfer job circular of elementary school teacher 2019. We Publish all Jobs Circular Every day, Such as Government Jobs in Bangladesh, Bank Jobs in Bangladesh, Private Jobs in Bangladesh, International NGO in Bangladesh, Private Company in Bangladesh, Private University Jobs in Bangladesh. Bank Jobs Results, Government Jobs Results, Government University Jobs result in Bangladesh and all Part-time Jobs in Bangladesh and other educational support are available here on our website. We provide different types of job information with also provide some effective information or resource and job tips which helps to get the job easily. Stay up-to-date with our website to know about new job news and you can stay connected with our Website. Thanks for visiting our site.

See All Govt Jobs:

Leave a Reply

Your email address will not be published.